নয়াদিল্লি: কাশ্মীরে বসেই গোপন কোডের মাধ্যমে পাকিস্তানে জইশ-এ-মহম্মদের সদর দফতরের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে জঙ্গিরা। সম্প্রতি এমনই চাঞ্চল্যকর একটি তথ্য হাতে এসেছে এনআইএ-র। এমনকী গোপন কোড ব্যবহার করে জঙ্গিরা নিজেদের মধ্যে কী কথা বলছে বা জঙ্গি নেতারা কাশ্মীরে থাকা সদস্যদের কী বার্তা দিচ্ছে তার কল রেকর্ডও হাতে এসেছে গোয়েন্দাদের।

করোনা আবহেও ভারত-বিরোধিতা জারি রেখেছে পাকিস্তান। পাকিস্তানেই রয়েছে জঙ্গি সংগঠন জইশ-এ-মহম্মদের সদর কার্যালয়।

সেখানে বসেই জঙ্গি নেতারা যোগাযোগহ রাখছে কাশ্মীরে থাকা তাদেরই সদস্যদের সঙ্গে। নতুন করে ভারতে জঙ্গি পাঠানোর ষড়যন্ত্র চলছে পাকিস্তানের মাটিতে বসেই। সম্প্রতি এমনই তথ্য হাতে এসেছে এনআইএ-র গোয়েন্দাদের।

প্রতীকী ছবি

গত ৩১ জানুয়ারি কাশ্মীরে একটি ট্রাক ধরা পড়ে। ট্রাকে থাকা বেশ কয়েকজন জঙ্গিকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে নিরাপত্তাবাহিনী। সেই ঘটনার তদন্ত শুরু করতেই একের পর এক বিস্ফোরক তথ্য হাতে পায় এনআইএ।

গোয়েন্দারা জানতে পারেন, সেই সময় নিয়মিত পাকিস্তান থেকে কথা বলা হচ্ছিল ওই জঙ্গিদের সঙ্গে। পাকিস্তানের সীমান্ত এলাকা থেকে জঙ্গিদের ট্রাকে তুলে দেওয়ার দায়িত্ব দেওয়া হয় সমীর দার নাম এক জঙ্গিনেতাকে।

গোপন কোডের মাধ্যমে জঙ্গিদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত কথা বলছিল পাক মাটিতে বসে থাকা জইশ-এর নেতারা। পরে ট্রাকটি কাশ্মীরে সেনাবাহিনীর হাতে আটক হওয়ার সময়ই পালিয়ে যায় সমীর দার। অন্য জঙ্গিদের ধরা গেলেও সেই সময় নিরকাপত্তাবাহিনীর নাগাল ফসকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় সমীর দার।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।