নয়াদিল্লি: ‘‘শীঘ্রই আসছি’’৷ বাংলায় লেখা আইএসের এই হুমকির পরই ভারতে বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গে জঙ্গি হামলার শঙ্কা দেখা দিয়েছে৷ এরই মধ্যে চিন্তা বাড়িয়েছে ভারতের গুপ্তচর সংস্থার একটি রিপোর্ট৷ তাতে বলা হয়েছে, ভারতে হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে জইশ-ই-মহম্মদ ও আইএস জঙ্গিরা৷ পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই জঙ্গি সংগঠনগুলির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছে৷ অর্থাৎ আবারও পাকিস্তান ভারতে হামলার জন্য সক্রিয় হয়ে উঠেছে৷

আরও পড়ুন: পুলিশের জালে শ্রীনগরের থানায় হামলা চালানো তিন জইশ জঙ্গি

গোয়েন্দা এজেন্সিগুলির এই রিপোর্ট জমা পড়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের ঘরে৷ রিপোর্ট পড়ে উদ্বেগে পড়ে যান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের আধিকারিকরা৷ তাতে বলা হয়েছে, আইএসআই একটি গোপন বৈঠকের আয়োজন করে৷ ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিল জইশ-ই-মহম্মদ ও আইএস সংগঠনের সদস্যরা৷ পাক গুপ্তচর সংস্থা ভারতে পুলওয়ামার মতো বা তার থেকেও বড় ধরনের জঙ্গি হামলা করাতে তৎপর হয়ে উঠেছে৷ সেই জন্য জইশ ও আইসিস জঙ্গিদের এক জায়গায় নিয়ে আসতে উদ্যোগী হয়েছে৷

আফগানিস্তানে জইশ ও তালিবান একজোট হয়ে ন্যাটো বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করছে৷ আইএসআই চাইছে ভারতেও এবার জইশ ও আইসিস সেভাবে কাজ করুক৷ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের এক আধিকারিকও ওই একই কথা জানিয়েছেন৷ তিনি বলেছেন, ‘‘আফগানিস্তানে অনেকদিন ধরেই জইশ ও তালিবান ন্যাটো বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করে চলেছে৷ ঠিক সেইভাবে ভারতে হামলা চালানোর জন্য আইসিস ও জইশ সংগঠনকে এককাট্টা করার প্রয়াস চলছে৷ সব পরিস্থিতির উপর নজর রাখা হচ্ছে৷ তবে এটা পরিস্কার, পাকিস্তান ভারতে আরও একটা হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে৷’’

আরও পড়ুন: স্ত্রীদের গয়না বেচেই কী ভোটের খরচ তুলছেন বিজেপি নেতারা, প্রশ্ন কমলনাথের

কিছুদিন আগে গোয়েন্দারা তাদের একটি রিপোর্টে জানায়, পাকিস্তানে মাসুদ আজহারকে দেখা গিয়েছে৷ সম্প্রতি জইশ প্রধান পাকিস্তানের বাহাওয়ালপুরে সংগঠনের শীর্ষ কমান্ডারদের সঙ্গে বৈঠক করেন৷ ওই বৈঠকে সংগঠনের প্রশিক্ষিত জঙ্গিদের ভারতে অল্প সময়ের মধ্যে ফিঁদায়ে হামলা চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন৷ সেই হামলা যেন পুলওয়ামার মতোই ভয়াবহ হয়৷ নির্দেশ দেয় জইশ প্রধান৷