কলকাতা: কলকাতা লিগের প্রথম ম্যাচে জর্জের কাছে হার অতীত। বুধবার বেঙ্গালুরু এফসি’র বিরুদ্ধে ডুরান্ড কাপের ম্যাচে মনোনিবেশ করেছে ইস্টবেঙ্গল। সেখানে নিদেনপক্ষে ড্র করলেই চলবে। কিন্তু ইস্টবেঙ্গল কোচ চান বেঙ্গালুরুর দলটিকে হারিয়েই ঐতিহ্যের ডুরান্ডে সেমিফাইনাল পাকা করতে।

জয় একটা অভ্যেস। আর লাল-হলুদের স্প্যানিশ কোচ সেই অভ্যেসেই বরাবর বিশ্বাসী। তাইতো ড্র করে পরের রাউন্ডে যাওয়ার সুযোগ থাকলেও জয় ছাড়া কিছুই ভাবছেন না স্প্যানিয়ার্ড। মরশুমের শুরুতে কলকাতা এবং ডুরান্ড কাপকে মূলত প্রাক-মরশুম প্রস্তুতি হিসেবেই দেখছেন আলেজান্দ্রো। তবে তুলনামূলকভাবে লাল-হলুদ কোচের কাছে কদর বেশি ডুরান্ডের। তাই বুধবারের ম্যাচে অপেক্ষাকৃত অভিজ্ঞ একাদশ গড়ার দিকে নজর আলেজান্দ্রোর।

আরও পড়ুন: ‘অল-টাইম গ্রেট’ মজিদ, মানছেন না সুভাষ

খুব সম্ভবত মাঝমাঠে হাইমে স্যান্টোস কোলাডো কাঁধের চোট সারিয়ে বুধবারের ম্যাচে ফিরছেন দলে। সেটা প্রথম একাদশে না হয়ে পরিবর্ত হিসেবেও হতে পারে। বাকি বিদেশিদের না খেলানোর ঝুঁকি এই ম্যাচে নেবেন না স্প্যানিশ কোচ। তাই বেঙ্গালুরু এফসি’র বিরুদ্ধে বুধবার কাশিম, বোরহাদের শুরু থেকেই দেখা যেতে পারে। মূলত জুনিয়র ফুটবলারদের নিয়ে ডুরান্ডের দল গড়া বেঙ্গালুরুর দলটিকে সমীহ করছেন পিন্টুদের হেডস্যার। তাই কোনওরকম ঝুঁকি ছাড়াই শেষ চার আগে নিশ্চিত করতে চাইছেন আলেজান্দ্রো ও তাঁর সহকারী কোকো।

আরও পড়ুন: বদলে গিয়েছে শহর, বদলায়নি শুধু লাল-হলুদ রঙটা: মজিদ বাসকর

অন্যদিকে বেঙ্গালুরু এফসি’র রিজার্ভ টিমের কোচ হিসেবে এই মুহূর্তে দায়িত্ব যার কাঁধে, সেই নৌশাদ মুসা মঙ্গলবার হাজির ছিলেন মঙ্গলবার লাল-হলুদের শতবর্ষ অনুষ্ঠানে। ভিনরাজ্যের ফুটবলার হিসেবে দুপুরে অনুষ্ঠিত প্রদর্শনী ম্যাচে মাঠে নেমেছিলেন তিনি। সেখানেই ম্যাচ শেষের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মুসা। বলেন বেঙ্গালুরুর এই দলে প্রায় সাতজন সিনিয়র দলেরও সদস্য। তাদের কাছে এটা দুর্দান্ত একটা সুযোগ নিজেদের প্রমাণ করার। তাই বুধবার ইস্টবেঙ্গলের কাজটা সহজ হবে না।