কলকাতা: রেশন বণ্টন নিয়ে আবারও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিঁধলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। সামনেই উৎসবের মরশুম শুরু। নভেম্বর মাস পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কেন্দ্রের রেশন নিয়ে রাজ্যে ‘দুর্নীতি’ রুখতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আগাম সতর্ক করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। মুখ্যমন্ত্রীকে বিঁধে রাজ্যপালের টুইট, ‘দেখবেন রাজ্যে রেশন যেন কাট খাওয়া না হয়’।

দেশজুড়ে বিপজ্জনক পরিস্থিতি তৈরি করেছে করোনাভাইরাস। প্রতিদিন লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ, পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যু। এই আবহেই সামনেই উৎসবের মরশুম শুরু। সেকথা মাথায় রেখেই আগামী নভেম্বর মাস পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বাংলাতেও রাজ্য সরকারের তরফে পরের বছর জুন মাস পর্যন্ত রেশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এই আবহেই এবার রেশনে খাদ্য-বণ্টন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিঁধেছেন রাজ্যকপাল জগদীপ ধনখড়। রাজ্যপাল টুইটে লিখেছেন, ‘দেখবেন রাজ্যে রেশন যেন কাট খাওয়া না হয়।’ রাজ্যে রেশনে খাদ্য-বণ্টন নিয়ে সম্প্রতি বিস্তর অভিযোগ ওঠে। একাধিক জেলায় শাসকদলের মদতে রেশন পণ্য বণ্টন নিয়ে দুর্নীতি চলে বলে অভিযোগ ওঠে।

সেই প্রসঙ্গ তুলেই টুইটে এদিন রাজ্যপাল লেখেন, ‘এখানকার রেশন ব্যবস্থার রাজনীতিকরণ দেখে চিন্তায় আছি। গরিব মানুষের প্রাপ্য কালোবাজারে এবং শাসকদলের কর্মীদের কাছেই চলে যায়।’

এপ্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘দুর্নীতি’ রুখতে সচেষ্ট হতে আবেদন জানিয়েছেন রাজ্যপাল। মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে ধনখড় লেখেন, ‘রেশন ব্যবস্থাকে রাজনৈতিক খাঁচা থেকে মুক্ত করুন। মানুষের সেবায় লাগান।’

রাজ্যে রেশনে খাদ্যসামগ্রী বণ্টনে ‘দুর্নীতি’ রুখতে সরকারি আধিকারিকদেরও যথাযোগ্য দায়িত্ব পালনের পরামর্শ দেন রাজ্যপাল। টুইটে এপ্রসঙ্গে তিনি লেখেন, ‘নিজেদের দায়িত্ব পালনে আমলারা সতর্ক থাকুন। আইন আপনাদের ছাড়বে না।’

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব