প্রতীতি ঘোষ,বারাকপুর: ‘বিস্ফোরক’ নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়৷ ফের রাজ্য সরকারকে তোপ দাগলেন রাজ্যপাল৷

রবিবার মধ্যমগ্রামে গান্ধীজীর ১৫০ তম জন্ম সার্ধ শতবর্ষ উপলক্ষে স্কাউট বিভাগের এক অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়৷ সেখানেই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বলেন, ‘খোলা বাজারে প্রকাশ্যে বিস্ফোরকের ব্যবসা হলে নির্বাচন কি করে শান্তিতে হবে?’

বাংলার সাংস্কৃতিক গরিমা ও প্রতিভার কথা উল্লেখ করে রাজ্যপাল প্রশ্ন তোলেন, পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষা সংস্কৃতি তে শীর্ষ স্থানীয় , এই রাজ্যে অসংখ্য মানুষ নোবেল জয়ী৷ সেখানে এই বংলাতে প্রকাশ্যে চলছে বিস্ফোরক বিক্রি৷ এই ভাবে বাংলাকে কি করে সন্ত্রাসের আড্ডা বানানো যায়?

তিনি আরও বলেন,‘আমার কার্যকালের মেয়াদ ৬ মাস পূর্ণ হলেও আমি কোথাও আমার সীমা অতিক্রম করিনি৷’ সিএএ ও এনআরসির পর রাজ্য যে সন্ত্রাস দেখছে, সেই কথাও এই দিন তিনি উল্লেখ করেন৷ রেল লাইন ওপড়ানো ও ভাঙচুড়ের কথাও বলেন তিনি৷

রাজ্যপাল সস্ত্রীক এদিন মধ্যমগ্রামের অনুষ্ঠানে যোগদান করে বলেন, রাজ্য কোথাও বিস্ফোরণ হলে আমি বিচলিত হই। কারন বিস্ফোরণে সাধারন মানুষের ক্ষতি হয়। তাই রাজ্যে প্রকাশ্যে কোথাও বিস্ফোরক বিক্রি হলে সেটা কাম্য নয়৷ এরফলে রাজ্যে অশান্তি বাড়বে এবং বাংলায় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করা সম্ভব হবে না৷

তার মতে, গভর্নর ও গর্ভমেন্ট একই গাড়ির দু’টি চাকা৷ দু’জনকেই একই সঙ্গে চলতে হবে।তিনি সরকারের কাজ আটকাবেন না৷ কিন্তু সংবিধানের মধ্যে থেকে রুল বুক মেনে চলবেন৷ তার দাবি, রাজ্যের তিনি একমাত্র রাজ্যপাল যিনি স্বাধীন ভারতে জন্মেছেন এবং রাজ্য বিধানসভায় নিয়ম মেনে ভাষণ দিয়েছেন৷