মিউনিখ: পুলিশি হেফাজতে কৃষ্ণাঙ্গ মার্কিনি জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুতে উত্তাল ট্রাম্পের দেশ। জর্জকে শ্বাসরোধ করে মৃত্যুর প্রতিবাদ এবং ন্যায়বিচারের দাবিতে যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে ব্যাপক মাত্রায় বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। মিনেয়াপোলিস পুলিশ আধিকারিক ডেরেক চাউভিনকে ফ্লয়েডের মৃত্যুর জন্য অভিযুক্ত করা হয়েছে। শিকাগো থেকে মিয়ামি, লস অ্যাঞ্জেলস থেকে হোয়াইট হাউস। বিক্ষোভের আগুন সর্বত্র।

এমন সময় ফ্লয়েডের মৃত্যুর ন্যায়বিচারের দাবি উঠল বুন্দেসলিগার মঞ্চ থেকেও। জ্যাডন স্যাঞ্চো থেকে আশরাফ হাকিমি, রবিবার ‘জাস্টিস ফর জর্জ ফ্লয়েড’ দাবিতে সোচ্চার হলেন বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের দুই গোলস্কোরার। ‘জাস্টিস ফর জর্জ ফ্লয়েড’ লেখা টি-শার্ট পরেই এদিন মাঠে নামেন ইংরেজ স্ট্রাইকার স্যাঞ্চো। যিনি ডর্টমুন্ডের হয়ে এদিন কেরিয়ারের প্রথম হ্যাটট্রিক করলেন। প্যাডেরবর্নকে ডর্টমুন্ড হারাল ৬-১ গোলে।

স্যাঞ্চো ছাড়াও এদিন গোলের পর ফ্লয়েডের ন্যায়বিচারের দাবি করলেন স্প্যানিশজাত মরক্কোন ফুটবলার আশরাফ হাকিমি। রবিবার অন্য আরেকটি ম্যাচে বরুসিয়া মনচেনগ্লাডবাচের মার্কাস থুরাম গোলের পর হাঁটু গেড়ে বসে শ্রদ্ধা জানান ফ্লয়েডকে। শনিবার আরেকটি ম্যাচে মার্কিন ডিফেন্ডার ওয়েস্টন ম্যাকেনিকেও ‘জাস্টিস ফর জর্জ’ লেখা আর্মব্যান্ড পরে মাঠে দেখা যায়।

তবে শুধু ফুটবল মাঠ থেকেই নয়। ফ্লয়েডের ন্যায়বিচারের ডাক এসেছে এনবিএ কিংবা টেনিসের কোর্ট থেকেও। প্রাক্তন এনবিএ চ্যাম্পিয়ন স্টিফেন জ্যাকসন, লস অ্যাঞ্জেলস লেকারস ফরোয়ার্ড এল জেমস কিংবা টিন-এজ মার্কিন টেনিস সেনসেশন কোকো গাফ প্রত্যেকেই জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুতে নিজেদের মতামত পোষণ করেছেন। রবিবার মার্কিন কৃষ্ণাঙ্গ বাস্কেটবল তারকা এল জেমস টুইটে লেখেন, ‘আমেরিকা আমাদের কেন ভালোবাসেনা?

অনলাইনে ভাইরাল হয়েছে ফ্লয়েডের মৃত্যু সংক্রান্ত এক ভিডিও ফুটেজ। যেখানে বেশ কয়েক মিনিট ধরে পুলিশি হেফাজতে থাকা জর্জ ফ্লয়েডের ঘাড়ের ওপর হাঁটু গেড়ে থাকতে দেখা গিয়েছে পুলিশ আধিকারিক চাউভিনকে। সেসময় ফ্লয়েড বারবারই শ্বাস নেওয়ার কাতর আবেদন জানাচ্ছিলেন ওই পুলিশ আধিকারিককে। কিন্তু তাতে কর্ণপাত করেননি পুলিশ আধিকারিক।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব