স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: হীরালাল পাল কলেজের পর এবার শিক্ষক নিগ্রহের অভিযোগের আঙুল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের দিকে। অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক আব্দুল কাফিকে সপাটে চড় মারে বিশ্ববিদ্যালয়েরই এক প্রাক্তন ছাত্র। জানা গিয়েছে, শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরেই ওই অধ্যাপকের গায়ে হাত তোলে অভিযুক্ত ওই প্রাক্তন ছাত্র। ঘটনায় এদিনই অভিযুক্ত ওই ছাত্রের নামে যাদবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন আব্দুলবাবু।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন হঠাৎ করেই বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান বরেন্দ্র বিশ্বাসের ঘরে ঢোকে অভিযুক্ত ছাত্র। তারপর তাঁকে বিভিন্নভাবে উত্যক্ত করতে থাকে। তাঁকে তুই-তোকারি সম্বোধন করেও ডাকতে থাকে। এরপর ঘর থেকে বেরিয়ে যায়। নিচেই ছিলেন অধ্যাপক আব্দুল কাফি। নিচে দাঁড়িয়ে চা খাচ্ছিলেন তিনি।

এমন সময় হঠাৎ এসে অধ্যাপককে সপাটে চড় মেরে পালায় ওই প্রাক্তন ছাত্র। কিছুক্ষণ পরে আব্দুলবাবু বুঝতে পারেন যে, অভিযুক্ত ওই ছাত্র বিশ্ববিদ্যালয়েরই প্রাক্তন ছাত্র। তারপরেই এদিন ওই ছাত্রের বিরুদ্ধে যাদবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন অধ্যাপক।

এদিন এক সংবাদ মাধ্যমের সামনে নিগৃহীত অধ্যাপক জানিয়েছেন, “আমাকে হঠাৎ চড় মেরে চলে গেল। আমি ওর নামে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি থানায়। এর বেশি কিছু বলতে পারব না।”

এই বিষয়ের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন যাদবপুর ইউনিভার্সিটি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশনের(জুটা) সম্পাদক পার্থ প্রতিম রায়। kolkata 24×7 কে তিনি জানান, “আজকাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে শিক্ষক হেনস্থা নিত্য-নৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই। এর প্রতিকার হওয়া দরকার।”