যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়

কলকাতা: আবারও খবরের শিরোনামে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। কিছুদিন আগে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র হেনস্থার ঘটনায় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল কলকাতার এই নামী বিশ্ববিদ্যালয়। যা নিয়ে শুরু হয়েছিল রাজনৈতিক তরজা। আর এবারে মহিলা খেলোয়াড়ের সঙ্গে অশালীন আচরণের অভিযোগ ওঠায় মুখ পুড়ল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের।

বিশ্ববিদ্যালয়ের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করা এক মহিলা খেলোয়াড়ের অভিযোগের ভিত্তিতে তড়িঘড়ি বরখাস্ত করা হয় কোচকে৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় কোচের বিরুদ্ধে মোবাইল মেসেজ ও অশালীন ছবি পোস্ট করে অভিযোগ জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের এক মহিলা ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়৷ কোচ তাঁকে অশালীন ছবি-সহ নানারকম অশোভন প্রস্তাব পাঠিয়েছেন বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিস্তারিতভাবে জানান তিনি। তার সঙ্গে যথেষ্ট প্রমাণও দেন ওই খেলোয়াড়।

তারপরেই নড়েচড়ে বসে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে অভিযুক্ত কোচকে পদত্যাগ করতে বলা হয় সঙ্গে সঙ্গেই। ইতিমধ্যেই মিটু আন্দোলনের জেরে বলিউড-টলিউডের নানা রথী মহারথীরা বিদ্ধ হয়েছেন। আর তারপরে এই ঘটনায় অবাক হয়েছেন অনেকেই।

আরও পড়ুন- বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়াতে বয়ফ্রেন্ডের উপরে অ্যাসিড ছুঁড়ল যুবতি

বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফ থেকে জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত এই কোচ বিশ্ববিদ্যালয়ে পার্ট-টাইমার কোচ হিসেবে নিযুক্ত হয়েছিলেন। কিন্তু অভিযোগ পাওয়ার পরই কোচের চুক্তি বাতিল করা হয়েছে। পাশাপাশি ওই খেলোয়াড়ও জোনাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিযোগিতায় নির্বাচিত হন। সম্প্রতি কেরল ছাত্রীর সঙ্গে আশালীন আচরণের জন্য চাকরি গিয়েছে বাঙালি কোচের৷ তারপর যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের এই ঘটনা কোচ-খেলোয়াড় তথা গুরু-শিষ্যের সম্পর্ককে বদনাম করল৷