স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র আক্রান্ত হওয়ার ঘটনাকে দুর্ভাগ্যজনক বললেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী তথা উত্তর ২৪ পরগনায় তৃণমূলের জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক৷ তবে রাজ্যপালের ভূমিকা সন্দেহজনক বলে মন্তব্য করেন তিনি৷

গত বৃহস্পতিবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে সঙ্ঘ পরিবারের ছাত্র সংগঠন এবিভিপির অনুষ্ঠানে গিয়ে একদল অতি বামপন্থী পড়ুয়ার প্রবল বিক্ষোভের মুখে পরেন বাবুল সুপ্রিয়। ‘গো ব্যাক’ স্লোগান শুধু শোনেননি, বিক্ষোভকারীদের হাতে কিল, চড়, ঘুসিও খেয়েছেন। প্রায় সাড়ে ছ’ ঘণ্টা আটকে থাকার পর রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করেন৷ এই ঘটনার পরই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও রাজ্য প্রশাসনের ভূমিকায় অসন্তোষ প্রকাশ করেন রাজ্যপাল৷

পাল্টা শাসক দলও রাজ্যপালের সমালোচনায় সরব হয়৷ শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “আশা করব আগামিদিনে রাজ্যপাল, তাঁর পদের গরিমা বজার রাখবেন৷ ” শনিবার উত্তর ২৪ পরগনার হাবরায় এন আর সির প্রতিবাদে তৃণমূলের আয়োজিত মিছিলে তৃণমূল কর্মীদের সঙ্গে পা মেলাতে মেলাতে খাদ্য মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক যাদবপুর প্রসঙ্গে বলেন যে ” বাবুল সুপ্রিয় আক্রান্তের ঘটনা যেমন দুর্ভাগ্যজনক তেমন রাজ্যপালের ভূমিকাও সন্দেহজনক এটা উনি ঠিক কাজ করেননি৷”

তবে শুধু জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকই নন, বাবুল সুপ্রিয়র আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় নিন্দা করেছেন রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ও৷ উপাচার্য সুরঞ্জন দাসকে কাঠগড়ায় তুলে সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘উনি উপাচার্য৷ ক্যাম্পাসে পুলিশ ডাকার অধিকার একমাত্র ওনার রয়েছে৷ উনি সঠিক সময়ে পুলিশ ডাকলে এতটা ঝামেলা বাড়ত না৷ আমাদের প্রশাসন তো সঠিক সময়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছতেই পারেনি৷ এই ঘটনায় উনি কখনওই দায় এড়াতে পারেন না৷’’ একই সঙ্গে ঘটনায় জড়িত পড়ুয়াদের কঠোর শাস্তির পক্ষেও সওয়াল করেন পঞ্চায়েত মন্ত্রী৷ তবে পঞ্চায়েত মন্ত্রীর মতো খাদ্যমন্ত্রী উপাচার্যর ভূমিকা নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি৷

এনআরসি নিয়ে এদিন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক আশ্বাসের সুরে বলেন, কোটি মানুষকে বাংলাদেশ তাড়িয়ে দেব বললেই তো হল না বাংলার মানুষ তা মেনে নেবে না ।এনআরসি বাংলায় চালু হবেনা। বসিরহাটে দুজনের মৃত্যু প্রসঙ্গে জ্যোতিপ্রিয়র বক্তব্য ‘ এন আর সি দুর্ভাগ্যজনক, এতে প্রচুর মানুষ মারা যাবে’।

অন্যদিকে গারুলিয়া পৌরসভা উপ পৌরপ্রধান সুব্রত মুখোপাধ্যায় বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে ফিরে আসা নিয়ে জ্যোতিপ্রিয় বলেন “যারা ফিরে গিয়েছিলো তারা সবাই দলে ফিরছে ,লাইন দিয়ে আছে পর দেখবেন অর্জুন সিংও ঢুকছেন ,মুকুল রায়ও লাইন দেবেন তবে আমরা নেব কিনা আমাদের সিদ্ধান্ত।”