নয়াদিল্লি: লোকসভায় গর্জন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর৷ সোমবার কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের ঘোষণার পর থেকেই প্রত্যয়ী দেখাচ্ছিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে৷ মঙ্গলবার তারই প্রতিফলন দেখল লোকসভা৷ কাশ্মীর নিয়ে কার্যত গর্জন করলেন শাহ৷ স্পষ্ট বার্তা দিয়ে পাকিস্তানকে তাঁর হুঁশিয়ারি, পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীর ভারতেরই অংশ৷

জম্মু কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল (২০১৯) এদিন লোকসভায় পেশ করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী৷ তখনই জানিয়ে দেন জম্মু কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ ছিল ও থাকবে৷ কারোর ক্ষমতা নেই সেই অংশে দখলদারি করার৷ তবে এদিন লোকসভায় বিলের আলোচনার সময় প্রশ্ন তোলেন কংগ্রেসের দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরি৷ তাঁর প্রশ্ন, জম্মু কাশ্মীর কোনওভাবেই অভ্যন্তরীণ বিষয় নয়৷ আলোচনার মাধ্যমে এর সমাধান বের করা উচিত ছিল৷

আরও পড়ুন : ‘কাশ্মীর ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় নয়’, অধীরের মন্তব্যে লজ্জিত কংগ্রেস

সেই প্রশ্নের উত্তরেই বেশ ক্ষুব্ধ দেখায় অমিত শাহকে৷ তিনি বলে ওঠেন, জম্মু কাশ্মীর ভারতের অংশ, তাহলে কেন তা অভ্যন্তরীণ বিষয় নয়? পাক অধিকৃত কাশ্মীর ও আকসাই চিনও ভারতের অংশ৷ ভারতের কেন্দ্র সরকারের পূর্ণ অধিকার রয়েছে কাশ্মীর সম্পর্কে অন্যান্য রাজ্যের মত সিদ্ধান্ত নেওয়ার৷

এই প্রসঙ্গে কংগ্রেসের তরফ থেকে বলা হয় ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকরেরও কাশ্মীর ইস্যুতে আলোচনার রাস্তা খোলা রেখেছিলেন৷

জয়শংকরের বক্তব্যকে হাতিয়ার করে কংগ্রেস পালটা এদিন বলে ভারতের বিদেশমন্ত্রক জানিয়ে ছিল কাশ্মীর সমস্যা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করবে ভারত৷ পাকিস্তানের সঙ্গে সেই আলোচনার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মত কোনও তৃতীয় ব্যক্তির মধ্যস্ততাকারী হওয়া মেনে নেওয়া হবে না৷ কংগ্রেসের অভিযোগ পাক অধিকৃত কাশ্মীর নিয়ে মাথাব্যথা নেই অমিত শাহদের৷ রাতারাতি কোনও এলাকাকে কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল বানানো যায় না৷ নিয়ম বহির্ভূতভাবে কাজ করেছে বিজেপি সরকার৷

আরও পড়ুন : ভারতে জঙ্গি অনুপ্রবেশের বড়সড় প্রচেষ্টা ব্যর্থ করল ভারতীয় সেনা

কংগ্রেসের দাবি ১৯৪৮ সাল থেকে কাশ্মীর ইস্যু পর্যবেক্ষণ করে আসছে রাষ্ট্রসংঘ৷ তাহলে কী করে এই বিষয়টি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় হয়? এই দাবিকেই পুরোপুরি নস্যাৎ করে দিয়েছেন অমিত শাহ৷ এদিন তিনি বলেন জম্মু কাশ্মীর যেমন ভারতের অংশ, তেমনই পাক অধিকৃত কাশ্মীর ও আকসাই চিন ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ৷ পাক অধিকৃত কাশ্মীরকে ফেরাতে প্রাণ দিয়ে দেবে কেন্দ্র৷