স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: শহরের সঙ্গে জেলাতেও জমিয়ে ঠাণ্ডা অনুভূত হচ্ছে বড়দিনে। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতরের পারদ। সোমবার ঠাণ্ডার সামান্য থাকলেও মঙ্গলবার যথারীতি হাজির শীতের বহর। কলকাতায় যেমন সকাল থেকে ঠাণ্ডা অনুভূত হয়েছে জেলা এবং গ্রাম অঞ্চলেও অনুভূত হয়েছে ঠাণ্ডার।

যথারীতি মাঝ ডিসেম্বর পেরোতে তবেই শীতের আভাস পাওয়া গিয়েছে দক্ষিণবঙ্গে। আবহাওয়া দফতর সবসময়েই বলে থাকে ডিসেম্বরের ১৫ তারিখ না পেরোলে দক্ষিণে জাঁকিয়ে শীত পড়ে না। তবু দক্ষিণবঙ্গের শীত আগেই চাই। সেই চাহিদা গত সপ্তাহের মধ্যভাগ থেকেই অনুভূত হয়েছে।

হাওয়া অফিস আগেই জানিয়েছিল বড়দিনে জাঁকিয়ে ঠাণ্ডা পড়বে। এদিনের সকালের পারদ সেটাই জানিয়ে দিল। মঙ্গলবার সকালে কলকাতার তাপমাত্রা ১২.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস৷ যা স্বাভাবিকের চেয়ে ১ ডিগ্রি কম৷ সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৫.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা আবার স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি কম৷

গত ২৪ ঘণ্টায় বর্ধমানের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১২.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।ক্যানিঙয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১১.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কাঁথি ৯.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দীঘার তাপমাত্রা ১০.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। হলদিয়ায় ১৩.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।, কৃষ্ণনগরের তাপমাত্রা সর্বনিম্ন ১০.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। পানাগড়ে তাপমাত্রা নেমেছে ৯.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। মেদিনীপুরে ১১.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস,শ্রীনিকেতনে ১০.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং হাওড়ার উলুবেড়িয়ায় তাপমাত্রা নেমেছে ১০.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

উত্তরবঙ্গের পাহাড়ি জেলায় সোমবার রাত পর্যন্ত তাপমাত্রা ছিল দার্জিলিং ২.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, শিলিগুড়ি ৮.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কোচবিহার ৯.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, জলপাইগুড়ি ১০.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং মালদহ ১৩.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।