কলকাতা: করোনা ভাইরাস গোটা বিশ্বজুড়ে অতি মহামারীর আকার ধারণ করেছে। ভারতে করোনা যাতে ছড়িয়ে না পড়ে তার জন্য ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছে। এই পরিস্থিতিতে রীতিমতো বিপাকে পড়েছেন ‌ জনগণ। পরিস্থিতি সামাল দিতে‌ এগিয়ে এসেছেন বিভিন্ন কর্পোরেট সংস্থা। করোনা মোকাবিলায় ১৫০ কোটি টাকার

তহবিল গড়ছে আইটিসি। সম্প্রতি তাদের এই উদ্যোগের কথা জানিয়েছেন সংস্থার চেয়ারম্যান সঞ্জীব পুরী।সংস্থার পক্ষ থেকে বার্তা দেওয়া হয়েছে একজন কর্পোরেট নাগরিক হিসেবে সমাজের প্রতি বেশ কিছু দায়বদ্ধতা থাকে। সেই কর্তব্য পালনের উদ্দেশ্যে তারাও বিশ্বজুড়ে এই অতি মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেমেছেন। এই পরিস্থিতিতে বিশেষ সতর্কতা এবং উদ্যোগের প্রয়োজন রয়েছে।

তাছাড়া লক্ষ্য করা গিয়েছে ,এই পরিস্থিতিতে সবচেয়ে মুশকিলে পড়েছেন সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষেরা। ওই তহবিলের টাকা ওই সব মানুষের জন্য খরচ করা হবে। পাশাপাশি তহবিলের অর্থ কাজে লাগানো হবে, গ্রামীণ স্বাস্থ্য পরিষেবা এবং করোনা সংক্রমণ আটকাতে দরকারি পণ্য সামগ্রী সরবরাহের জন্য।

এক্ষেত্রে সমাজের দুর্বল মানুষ বিশেষত যারা গ্রামে বাস করে তাদের পাশে দাঁড়ানোর দিকে জোর দেওয়া হয়েছে। মূলত ওই তহবিলের অর্থ সমাজের দুর্বল ও অনগ্রসর‌ শ্রেণীর মানুষের উপকারের জন্য অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। তবে করোনা প্রকোপের জেরে যাদের স্বাভাবিক জীবন ব্যাহত হয়েছে তাদেরও সহায়তার জন্য তহবিলের অর্থ ব্যবহার করা হবে।

প্রসঙ্গত এই পরিস্থিতিতে করোনা মোকাবিলার জন্য যেমন দেশে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে তেমনি আবার সরকার জনগনের অসুবিধার কথা মনে করে ১.৭ লক্ষ্য কোটি টাকার পার্থিক প্যাকেজ ঘোষণা হয়েছে। অন্যদিকে আবার ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশের কর্পোরেট জগতের নেতাদের সঙ্গে পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেছেন। ফলে‌‌ একে একে বিভিন্ন কর্পোরেট সংস্থা ও শিল্প গোষ্ঠীকে ‌ সাড়া দিয়ে সমাজের প্রতি তাদের কর্তব্য পালনে এগিয়ে আসতে দেখা যাচ্ছে।