আবু ধাবি: এএফসি এশিয়ান কাপের ঢাকে কাঠি পড়তে বাকি আর দিন-তিনেক। বিভিন্ন দলের পারমুটেশন-কম্বিনেশন নিয়ে বিশ্বজুড়ে ফুটবলবোদ্ধাদের ভবিষ্যদ্বাণী শুরু হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই। ভারতীয় দলকে নিয়েও চলছে জল্পনা-কল্পনার পালা। এমন সময় টুর্নামেন্ট শুরুর প্রাক্কালে প্রতিপক্ষদের কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন দেশের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলস্কোরার সুনীল ছেত্রী।

টুর্নামেন্ট শুরুর ঠিক আগে দেশের জার্সি গায়ে ৬৫টি গোলের মালিক ছেত্রী জানান, ‘আমাদের সামলানো প্রতিপক্ষের জন্য খুব একটা সহজ ব্যাপার হবে না।’ আটবছর পর ফের এশিয়ান কাপের মূলপর্বে ভারত। ২০১১ এশিয়ান কাপ দলের মাত্র দু’জন সদস্য সামিল ২০১৯-র দলে। তাই আনকোরা তরুণ দল নিয়ে আশাবাদী ছেত্রী বলেন, ‘আমরা জয় ছাড়া কিছুই ভাবছি না। নিশ্চিত বলতে পারি ভারতকে সামলানো টুর্নামেন্টে যে কোনও দলের কাছে চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে।’

৬ জানুয়ারি বাহরিনের বিরুদ্ধে ম্যাচ দিয়ে এশিয়ান কাপে অভিযান শুরু করছে মেন ইন ব্লু। তাই গ্রুপ পর্বে সবচেয়ে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে কাকে ধরছেন? প্রশ্নের উত্তরে ভারতীয় ফুটবলের পোস্টার বয় জানান, ‘যে কোন টুর্নামেন্টের ওপেনিং ম্যাচ সবসময় কঠিন ও চ্যালেঞ্জিং। আর যেহেতু টুর্নামেন্টে আমাদের প্রথম প্রতিপক্ষ বাহরিন, তাই বাহরিন ছাড়া আর কাউকে নিয়েই এই মুহূর্তে ভাবতে রাজি নই।’

গোলের নিরীখে প্রাক্তন অধিনায়ক বাইচুং ভুটিয়াকে টপকে গিয়েছেন আগেই। এশিয়ান কাপের গ্রুপ পর্বের তিনটি ম্যাচে মাঠে নামলে দেশের জার্সি গায়ে মাঠে নামার নিরীখে ছুঁয়ে ফেলবেন ‘পাহাড়ি বিছে’ কে। এই প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে ছেত্রী বলেন, ‘আমি কখনও রেকর্ডের জন্য খেলি না। তবে নামের সঙ্গে রেকর্ড জুড়ে গেলে কার না ভালোলাগে। আমি কখনও স্বপ্নেও ভাবিনি দেশের জার্সি গায়ে ১০০টির বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলব কিংবা ষাটের বেশি বল জালে বল জড়াব।’

তাই রেকর্ডের অদূরে দাঁড়িয়েও ফোকাস হারাতে রাজি নন ছেত্রী। নিজেকে বাইচুংয়ের একজন ‘বড় ভক্ত’ আখ্যা দিয়ে এশিয়ান কাপে দলের হয়ে প্রতিপক্ষের জাল কাঁপাতে তৈরি ১০৪ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা সুনীল। চিন, জর্ডন এবং ওমানের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে এশিয়ানের মত টুর্নামেন্টে নামছেন সুনীল-জেজেরা।

চিন এবং ওমানের বিরুদ্ধে ড্র এবং জর্ডনের বিরুদ্ধে হেরে এশিয়া সেরা টুর্নামেন্টে অভিযান শুরু করছে ভারত। প্রস্তুতি হিসেবে সুনীলরা বিশেষ ম্যাচ না খেলায় অনেকেই টুর্নামেন্টে ভারতের সফল সম্ভাবনা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন। তবে অভিযান শুরুর প্রাক্কালে ছেত্রীর এই কড়া মনোভাবে কতটা লাভবান হয় দল, এখন সেটাই দেখার।