স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: হালকা বৃষ্টিতেই খুশি থাকতে হবে কলকাতাকে। কারন মাঝে মাঝে হালকা বৃষ্টি আর মেঘে ঢাকা আকাশ প্যচাপ্যাচে গরম থেকে মুক্তি দিয়েছে কলকাতাবাসীকে। শহরের সর্বোচ্চ এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কিছুটা কমেছে।

রবিবার শনিবার কলকাতার তাপমাত্রা সর্বনিম্ন ২৭.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশী। শনিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩১.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। রবিবার আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বোচ্চ ৯০ এবং সর্বনিম্ন ৭২ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টি হয়েছে ১.৮ মিলিমিটার। শনিবার কলকাতার তাপমাত্রা সর্বনিম্ন ২৭.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশী। শুক্রবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশী। আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বোচ্চ ৮৯ এবং সর্বনিম্ন ৬৩ শতাংশ।বৃষ্টি হয়েছে ছিটেফোঁটা এতেই স্পষ্ট যে অল্প বৃষ্টি হয়েছে তাপমাত্রাও অল্প কমেছে। প্যাচপ্যাচে গরম আপাতত কম মালুম হচ্ছে। বুধবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৩.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশী। বৃহস্পতিবারে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৭.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশী। আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল সর্বোচ্চ ৯৭ শতাংশ , সর্বনিম্ন ৭১ শতাংশ। বৃষ্টি হয়েছিল ০.১ মিলিমিটার। হাওয়া অফিস আরও জানিয়েছে, রবিবার অথবা সোমবার থেকে উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকটি জায়গায় ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে। বিশেষ করে উত্তরবঙ্গের উপরের দিকের পাঁচ জেলাগুলিতে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা বেশি।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা গণেশকুমার দাস জানিয়েছেন, “গাঙ্গেয় বঙ্গোপসাগরের উপরে একটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। তার প্রভাবেই আগামী ২৪ ঘণ্টা ভাল বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।” বৃষ্টি হবে দক্ষিণবঙ্গ জুড়েই। একইসঙ্গে তিনি বলেন , “এই সিস্টেমের জন্য কলকাতাসহ উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগণা, পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর, পূর্ব বর্ধমান, পশ্চিম বর্ধমান, হাওড়া, হুগলি, নদিয়াতে বৃষ্টি হবে। পশ্চিমের জেলা পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম, বীরভূমে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।” বৃষ্টি হবে উত্তরবঙ্গেও। উপরের পাঁচ জেলা দার্জিলিং, কালিম্পং,আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়িতে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

ফাইল ছবি৷

তবে বৃষ্টি হলেও জুলাইের প্রথম সপ্তাহের শেষে এসেও বৃষ্টির পরিমাণ কম। ফলে ঘাটতি রয়েই যাচ্ছে। মৌসম ভবনের তথ্য অনুযায়ী , জুলাইয়ের ১ থেকে ৬ তারিখ পর্যন্ত কলকাতায় বৃষ্টির ঘাটতি ৬৬ শতাংশ। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ২৭, হাওড়া ৭২, উত্তর ২৪ পরগনায় ৫৮, পশ্চিম মেদিনীপুর ২৯, পূর্ব মেদিনীপুরে ৩৬, পুরুলিয়াতে ৩২ শতাংশ বৃষ্টির ঘাটতি রয়েছে। রাজ্যের অন্যান্য জেলার ছবিও মোটামুটি একই রকম। ঘূর্ণাবর্তের বৃষ্টিতে ঘাটতি কতটা মেটে সেটাই দেখার।