দুবাই: সোমবার কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে নামার আগে চলতি আইপিএলে ১০ ম্যাচে নিয়েছেন ১২টি উইকেট নিয়েছিলেন। যার মধ্যে রয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে এক ইনিংসে ৫ উইকেট। হাজার হোক সংক্ষিপ্ত আইপিএল কেরিয়ারের উপর ভিত্তি করে জাতীয় দলে সুযোগ করে নেওয়ার কথার কথা স্বপ্নেও ভাবতে পারেননি তিনি।

কিন্তু সোমবার অস্ট্রেলিয়া সফরের জন্য ভারতীয় দলে অপ্রত্যাশিত ভাবেই এসে গেল সুযোগটা। আর আইপিএল পরবর্তী আসন্ন অস্ট্রেলিয়া সফরের টি২০ স্কোয়াডে সুযোগ পেয়ে খানিকটা অবাক কলকাতা নাইট রাইডার্সের মিস্ট্রি স্পিনার বরুণ চক্রবর্তী।

এখনও তামিলনাড়ুর হয়ে নিজেকে মেলে ধরার মতো কিছু করে উঠতে পারেননি। কেবল চলতি আইপিএলে তাঁর স্পিনের জাদুতে মুগ্ধ হয়ে অস্ট্রেলিয়াগামী ভারতের টি২০ স্কোয়াডে বরুণকে জায়গা দিয়েছেন নির্বাচকেরা। দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে এক ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়ার পরেই এল সুযোগটা। পঞ্জাবের বিরুদ্ধে ম্যাচ চলাকালীন বয়ে এল সুখবরটা। আর ম্যাচ শেষে ভারতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বাকরুদ্ধ মিস্ট্রি স্পিনার বরুণ।

ম্যাচ শেষে এদিন বরুণ বলেন, ‘মনে হচ্ছে যেন এটা আমার ভাগ্যের পরিহাস। এই মুহূর্তে আমার কাছে খুশি প্রকাশ করার কোনও ভাষা নেই। ভারতীয় দলে সুযোগ পাওয়া আমার কাছে নিঃসন্দেহে বিরাট বড় ব্যাপার।’

বরুণ তাঁর প্রতিক্রিয়ায় যোগ করেন যে, ‘আমার প্রাথমিক লক্ষ্য ছিল আইপিএলে ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম করে প্রথম একাদশে জায়গা পাকা করা। আশা করি ভারতীয় দলের হয়েও একই কাজ আমি করতে পারব। সোশ্যাল মিডিয়ায় আমি খুব একটা সক্রিয় নই। আমার প্রতি আস্থা রাখার জন্য জাতীয় নির্বাচকদের ধন্যবাদ জানাতে চাই আমি।’ আইপিএলের সাফল্য দিয়ে ভারতীয় দলে সুযোগ করে নেওয়ার খুশি পরিবারের সঙ্গেও ভাগ করে নিয়েছেন বরুণ।

মিস্ট্রি স্পিনার জানিয়েছেন, বাবা-মায়ের সঙ্গে তাঁর এবিষয়ে কথা হয়েছে। এছাড়া বাগদত্তার সঙ্গেও জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার আনন্দ ভাগ করে নিয়েছেন বলে জানিয়ছেন বরুণ। যদিও জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার দিনে আইপিএলে ম্যাচ হারতে হল বরুণের কলকাতাকে। বল হাতেও খুব সফল হতে পারলেন না বরুণ।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।