লখনউ: রাজ্যে বেড়ছে খুনের ঘটনা৷ উত্তর প্রদেশের আইন শৃঙ্খলার অবনতি হয়েছে৷ দাবি কংগ্রেসের৷ ক্ষমতায় লড়াইয়ে হারলেও যোগী সরকারের সমালোচনায় পিছপা নন পূর্ব উত্তর প্রদেশের কংগ্রেস সম্পাদিকা প্রিয়াঙ্কা গান্ধী৷ ট্যুটারে উত্তর প্রদেশ প্রশাসন ও যোগী সরকারের বিরুদ্ধে সরব হন তিনি৷ জবাবে যোগীর কটাক্ষ, ‘‘ভোটে হেরে এখন আঙুর টক লাগছে৷’’

ধর্ষণ, খুন, রাজনৈতিক হত্যা ঘটনায় সংবাদ শিরোনামে বিজেপির উত্তর প্রদেশ৷ পরিস্থিতি বদলে একের পর এক বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ৷ রাজ্যে আ্যান্টি রোমিও স্কোয়াড চালুরও নিদান দেন তিনি৷

আরও পড়ুন: ‘জয় শ্রীরাম’ না বলায় ফের মুসলিম যুবককে এলোপাথাড়ি মার

উত্তর প্রদেশের এহেন পরিস্থিতিকেই অবশ্য পুঁজি করে হালে পানি পেতে মরিয়া কংগ্রেস৷ শনিবারই প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বঢরা সোশ্যাল মিডিয়ায় মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচনা করেন৷ রাজ্যের ঈইন-শৃঙ্খলা ভেঙে পড়ার জন্য দায়ী করেন মু্খ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে৷

ট্যুইটে তিনি লেখেন, ‘‘উত্তরপ্রদেশে দুষ্কৃতীরা অবাধে ঘুরে বেড়াচ্ছে৷ তাদের যা ইচ্ছে তাই করছে৷ একের পর এক অপরাধের ঘটনা ঘটছে৷ কিন্তু বিজেপি সরকার বধিরের মতো আচরণ করছে৷’’ তাঁর প্রশ্ন, ‘‘উত্তর প্রদেশ সরকার কী অপরাধীদের কাছে আত্মসমর্ণ করেছে?’’

শনিবারের প্রিয়াঙ্কার ট্যুইটের পর পরই তার জবাব দিতে এগিয়ে আসে উত্তর প্রদেশ পুলিশ৷ পালটা ট্যুইট করা হয় পুলিশ প্রশানের তরফে৷ সেখানে রাজ্যে পূর্ব ভাগের কংগ্রেস সম্পাদিকার দাবি খণ্ডন করা হয়৷ লেখা হয়, ‘‘অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে পদক্ষেপ করা হয়েছে৷ গত দু’বছরে রাজ্যে ৯,২২৫ জন অপরাধীকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ নিহতের সংখ্যা ৮১৷ জাতীয় সুরক্ষা আইনে ২০০ কোটি টাকার উপর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে৷ উল্লেখযোগ্যভাবে কমেছে ডাকাতি, ধর্ষণ ও ছিনতাই সহ নানান অপরাধের ঘটনা৷’’ দাবি করা হয়েছে, অপরাধ কমার প্রবণতাই প্রমাণ করছে পুলিশ সক্রিয়৷

আরও পড়ুন: চলন্ত গাড়ির মধ্যে কিশোরীর ওপর চলল একের পর এক পৈশাচিক তাণ্ডব

এরপরই আসরে নামেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ৷ প্রিয়াঙ্কার ট্যুইটের প্রেক্ষিতে তিনি বলেন, ‘‘এই বিষয়টা অনেকটা আঙুর না পেয়ে টক বলার মতো৷ কংগ্রেসের সভাপতিই এরাজ্য থেকে ভোটে হেরেছেন৷ দিল্লি বা ইতালি, বা ইংল্যান্ডে বসে অনেক কিছুই বলে দেওয়া যায়৷ আসলে তাদের আসল উদ্দেশ্য হল সংবাদ শিরোনামে থাকা৷’’

ভোট মিটেছে৷ দেশজুড়ে বিজেপির পালে হাওয়া৷ ক্ষমতায় মোদী৷ উত্তর প্দেশে ভেঙেছে ‘বুয়া বাবুয়া’ জোট৷ কংগ্রেসের অবস্থা শোচনীয়৷ বারের দায় মাথায় নিয়ে দলের সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দিতে মরিয়া রাহুল গান্ধী৷ প্রিয়াঙ্কা খড়কুটোর মতো রাজ্যের আইন শৃঙ্খলাকে ধরে সরবের চষ্টায়৷ কিন্তু, তা যে সহজ নয় যোগী ও পুলিশের পদক্ষেপেই স্পষ্ট৷