বেঙ্গালুরু: আন্তর্জাতিক স্তরে আবারও নতুন পালক যোগ হতে চলেছে ইসরোর মুকুটে। বুধবার, দেশের প্রথম গুপ্তচর স্যাটেলাইট ‘রিস্যাট-২বিআর১’ উৎক্ষেপণ করতে চলেছে ভারত। এর সঙ্গেই ৯টি বিদেশি স্যাটেলাইটও উৎক্ষেপণ করতে চলেছে ভারতের এই মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র।

এর আগে ২০১৪ সালে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটা উৎক্ষেপণকেন্দ্র থেকে ‘পিএসএলভি-সি৪৮’ সফলভাবে পৃথিবী থেকে ৫৭৬ কিলোমিটার দূরে স্থাপন করে দেয়। ‘রিস্যাট-২বিআর১’-এর মেয়াদ ছিল পাঁচ বছরের। তাই ২০১৯ সালে আবারও একটি গুপ্তচর স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করতে চলেছে ইসরো।

দেশের স্যাটেলাইট ছাড়াও আমেরিকার মাল্টি মিশন লেমুর-৪ স্যাটেলাইট, ইজরায়েলের রিমোট সেন্সিং ডুসিফ্যাট-৩। ইতালির সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ টোয়াক-০০৯২। এই স্যাটেলাইট ছাড়াও আরও ছ’টি বিদেশী স্যাটেলাইট ছাড়বে ইসরো।

পুরো অপারেশনটি হতে সময় লাগবে মোট ২১ মিনিট। এই ২১ মিনিটের মধ্যে প্রথম ১৬ মিনিটেই ৯টি উপগ্রহকে নিজেদের কক্ষে স্থাপিত করা হয়ে যাবে। এরপর ‘রিস্যাট-২বিআর১’ স্যাটেলাইটকে নিজের কক্ষে পৌঁছে দেবে পিএসএলভি।

এর আগে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ইসরো) জানিয়েছিল, গত ২৮ নভেম্বর, বুধবার সকাল ৯টা ২৮ মিনিটে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটার সতীশ ধাওয়ান মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র থেকে ‘পিএসএলভি সি-৪৭’ রকেটে চেপে পাড়ি দেয় কার্টোস্যাট-৩। তার সহযাত্রী হয়েছিল ১৩টি মার্কিন খুদে উপগ্রহ বা স্যাটেলাইট। উৎক্ষেপণের ১৭ মিনিট পরে নির্দিষ্ট কক্ষপথে পৌঁছে যায় কার্টোস্যাট-৩।

তারপরের ১০ মিনিটে মার্কিন খুদে উপগ্রহগুলিও নিজের নিজের কক্ষপথে পৌঁছয়। মোদী সরকার ইসরোর বাণিজ্যিক শাখা হিসেবে নিউস্পেস ইন্ডিয়া লিমিটেড নামে একটি সংস্থা তৈরি করেছে। তার মাধ্যমেই বিদেশি উপগ্রহ উৎক্ষেপণের বরাত মিলেছে বলে ইসরো সূত্রের খবর।