নয়াদিল্লি: শতরুক্ষের অত্যাধুনিক ট্যাংক এবার ধ্বংস হবে চোখের নিমেষে। ভারতের অস্ত্রভাণ্ডারে এল এক শক্তিশালী অস্ত্র।

ট্যাঙ্ক আক্রমণ মোকাবিলা করার জন্য এবার সীমিত সংখ্যক ইজরায়েলি স্পাইক অ্যান্টি-ট্যাংক গাইডেড মিসাইল পেল ভারতীয় সেনা। তবে ভারতীয় সেনা এই অস্ত্র ব্যবহার করবে সীমিত সময়ের জন্য। DRDO-র তৈরি দেশীয় প্রযুক্তির মানবচালিত পোর্টেবল ট্যাংক কিলার তৈরি না-হওয়া পর্যন্ত ইজরায়েলি ট্যাংক কিলার ব্যবহার করা হবে।

কাশ্মীরে সংবিধানের ৩৭০ ধারা বিলোপের পর থেকে বিভিন্ন উপায়ে সীমান্তে উত্তেজনা তৈরির চেষ্টা করছে পাকিস্তান। ভারত-পাকিস্তান বিবাদও নয়া মাত্রায় পৌঁছেছে। অস্থির পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার সম্ভাবনাও দেখা দিয়েছে। এখনও পর্যন্ত উদ্দেশে সফল হয়নি পাকিস্তান। তবে চাপা উত্তেজনা রয়েছেন। এরই মধ্যে নতুন অস্ত্র পেয়ে গিয়েছে ভারতীয় সেনা। জানা গিয়েছে, প্রথম ধাপে ২১০ স্পাইক মিসাইল ও এক ডজন লঞ্চার এসে পৌঁছেছে।

২০২০ সালে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে মানব-পোর্টেবল ATGM দেওয়ার ব্যাপারে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ DRDO. গত মাসেই তিনটি সফল ট্রায়াল হয়েছে। তবে সেই অস্ত্র হাতে পাওয়ার আগে ইজরায়েলি ট্যাঙ্ক কিলারে আস্থা রাখছে ভারতীয় সেনা।