লন্ডন: ইসলামিক স্টেট জঙ্গিরা ব্রিটেনের উপর সাইবার হামলা চালানোর পরিকল্পনা করছে। ব্রিটেনের রাজকোষাধ্যক্ষ জর্জ অসবর্ন এই বলে সতর্ক করলেন মঙ্গলবার। চরম ইসলামপন্থী জঙ্গিরা সাইবার হামলা চালিয়ে ব্রিটেনের পরিকাঠামোকে অচল করে দেওয়ার ছক কষছে বলে জানিয়েছেন তিনি। আইএস জঙ্গিদের মোকাবিলায় ২০২০ সালের মধ্যে সাইবার নিরাপত্তা খাতে বরাদ্দ বাড়ানো হচ্ছে ১.৯ বিলিয়ন পাউন্ড।

 ‘‘আইএসকে আর্থিক মদত দিচ্ছে জি-২০ ভুক্ত দেশও’’

জর্জ অসবর্নের দাবি, ইসলামিক স্টেট জঙ্গিরা সাইবার জগৎকে ব্যবহার করে বিধ্বংসী হামলার ব্লুপ্রিন্ট বানিয়ে ফেলেছে। এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের মতো পরিষেবার উপর একবার যদি আইএস জঙ্গিরা হানা দেয়, তার পরিনাম কী মারাত্মক হতে পারে, সে বিষয়ে সতর্ক করে দিয়েছেন রাজকোষাধ্যক্ষ।

 ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে আমেরিকা ও রাশিয়াকে পাশে চায় ফ্রান্স

অসবর্ন বলেন, “জঙ্গিরা জানে, পথেঘাটে-সামনাসামনি ব্রিটেনের মানুষদের মারা যাবে না। তাই অনলাইনে নিত্য প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলিকে পঙ্গু করে দিয়ে তারা আক্রমণ করতে চায়।” পাশাপাশি তিনি এও বলেন, “যদিও এখনই জঙ্গিদের হাতে সেই পরিকাঠামো নেই। কিন্তু তারা তাদের সেরা প্রযুক্তিবিদদের সেই সামর্থ্য উপার্জনের জন্য নিয়োগ করেছে।”

  যাত্রীবাহী বিমান ধ্বংসের পিছনে বোমা, জানাল রাশিয়া

 

 

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.