নয়াদিল্লিঃ ন্যাশনাল কমিশন ফর মাইনরিটিস বা জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যানের চিঠিতে এবার চাঞ্চল্যকর তথ্য। জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান জর্জ ক্যুরিয়েনের লেখা একটি চিঠি পৌঁছেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে। সেখানে পরিষ্কার উল্লেখ করা হয়েছে লাভ জিহাদের ব্যাপারে। ক্যুরিয়েন জানিয়েছেন এবার লাভ জিহাদের টার্গেট খ্রিস্টান মেয়েরা।

কেরলে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া একাধিক ঘটনা সেই দিকেই ইঙ্গিত করছে বলে স্পষ্ট জানিয়েছেন তিনি। ক্যুরিয়েনের দাবি, কেরলে ইসলামপন্থী মৌলবাদীরা এখন টার্গেট করেছে খ্রিস্টান মহিলাদের। তাদের দিয়ে লাভ জিহাদের নানা রাস্তা বের করা হচ্ছে। এদের বিভিন্ন জঙ্গি কার্যকলাপেও কাজে লাগানো হচ্ছে বলে ক্যুরিয়েনের দাবি। চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেছেন, খ্রিষ্টান মহিলাদের ইসলামে ধর্মান্তরিত করার কাজ শুরু হয়েছে করলে, যা বেশ কয়েকমাস ধরেই ঘটে আসছে।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে এই বিষয়ে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য আবেদন করেছেন ক্যুরিয়েন। কোঝিকোড়ের একটি ঘটনা উল্লেখ করে সেই মহিলার বাবার লেখা এক চিঠিও শাহকে পাঠিয়েছে তিনি। জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশনকে লেখা ওই বৃদ্ধের চিঠিতে লাভ জিহাদের উল্লেখ ছিল। তিনি অভিযোগ করেছিলেন তাঁর মেয়েকে জোর করে খ্রিস্টান থেকে ইসলাম ধর্ম নিতে বাধ্য করা হয়েছে। পরে সেই মেয়েটিকে ব্ল্যাকমেলও করা হয়। এই মুসলিম মৌলবাদীদের বিরুদ্ধে এনআইএ তদন্তের দাবি জানিয়েছে জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান। ক্যুরিয়েনের দাবি এই সব ধর্মান্তরিত মেয়েদের জোর করে জঙ্গি সংগঠনের নানা কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। এমনকী এদের সাথে আইসিসের যোগ রয়েছে বলেও অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি।

ক্যুরিয়েন নিজের চিঠিতে জানিয়েছেন, যেসব মহিলাদের লাভ জিহাদের নামে ধর্মান্তরিত করা হয়েছে, তাদের অধিকাংশকেই রাজ্য থেকে চলে যেতে হয়েছে। আইসিসের কেরল শাখার সঙ্গে যুক্ত করে দেওয়া হয়েছে এবং এদের অনেককেই ক্রীতদাসী বানিয়ে রাখা হয়েছে। উল্লেখ্য, আইসিসের সঙ্গে যুক্ত সন্দেহে ইতিমধ্যেই কেরলে ধরা পড়েছে ২১ জন। এদের মধ্যে ৫ জনের ধর্মান্তকরণ করা হয়েছে।