ঢাকা: আসন্ন রমজান মাস শুরুর আগেই দেশের সুপ্রিম কোর্ট চত্বর থেকে সরিয়ে ফেলতে হবে গ্রিক দেবী থেমিসের আদলে গড়া আইনের রক্ষাকারী মূর্তি৷ এর অন্যথা হলে ঘেরাও করা হবে সুপ্রিম কোর্ট৷ শুক্রবার এমনই হুঁশিয়ারি দিল ধর্মীয় সংগঠন ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ৷ সংগঠনটি ঢাকার বায়তুল মোকাররম মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় বিশাল সমাবেশ করে ৷ তাদের হুঁশিয়ারির পরই বাংলাদেশ জুড়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে৷

ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ সংগঠনের ‘আমির’ মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, মূর্তি স্থাপন করে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন৷ তিনি এই পদে থাকতে পারেন না৷ সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে এবং জাতীয় ইদগাহের পাশে গ্রিক দেবীর মূর্তি স্থাপন করে ধর্মীয় চেতনায় সবচেয়ে বড় আঘাত হানা হয়েছে।

দেবী মূর্তি সরানোর দাবিতে এর আগে চরম বার্তা দিয়েছে কট্টরপন্থী ধর্মীয় সংগঠন হেফাজতে ইসলাম৷ তাদের সঙ্গে গলা মেলায় আরও কিছু সংগঠন৷

অন্যদিকে ধর্মীয় নেতাদের সম্মেলন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানান, সুপ্রিম কোর্ট চত্বরে মূর্তি থাকা তিনিও পছন্দ করেন না৷ পরে বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশের মুখ্য বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার সঙ্গে বিশদে আলোচনা করেন শেখ হাসিনা৷ আলোচনায় উঠে এসেছে, নামাজের সময় ভাস্কর্যটি ঢেকে ফেলতে হবে৷

সরকারের এই অবস্থানে বাংলাদেশের ধর্মনিরপেক্ষ সমাজ ক্ষুব্ধ৷ অভিযোগ, সরকার কট্টরপন্থী ধর্মীয় সংগঠনের বিরুদ্ধে কড়া অবস্থানের বদলে নমনীয় হয়েছে৷ সমাবেশ ঘিরে কোনওরকম অশান্তি রুখতে সচেষ্ট ছিল সরকার৷ বিশাল রক্ষী বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছিল৷

- Advertisement -