গত কয়েকদিন আগে ফের ‘সার্জিকাল স্ট্রাইক’ চালায় ভারতীয় সেনা। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জঙ্গিদের একাধিক ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেয় ভারতীয় সেনাবাহিনী। পাক অধিকৃত কাশ্মীরের নীলম ভ্যালিতে ওই জঙ্গিঘাঁটিগুলি ছিল বলে জানা গিয়েছে। তাংধার সেক্টরের বিপরীতেও জঙ্গিঘাঁটিতে টার্গেট করা হয়েছে বলে জানা যায়। যদিও ভারতীয় সেনার কড়া প্রত্যাঘাতে কতগুলি জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস হয়েছে তা নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে। কিন্তু বেশ কয়েকটি জাতীয় সংবাদমাধ্যমে দাবি করা হয় যে, চার থেকে পাঁচটি জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে।

কিন্তু রিপাবলিক টিভি এই বিষয়ে একটি সুপার এক্সক্লুসিভ খবর করেছে। যেখানে তারা দাবি করছে যে, অধিকৃত কাশ্মীরে অন্তত ৭টি জঙ্গি ঘাঁটি একেবারে গুঁড়িয়ে দিয়েছে ভারতীয় সেনা। শুধু তাই নয়, ভারতীয় সেনার এই প্রত্যাঘাতে ৫০ জন পাক জঙ্গি খতম হয়েছে বলে দাবি করেছে ওই সংবাদমাধ্যম। যদিও এই বিষয়ে ভারতীয় সেনার তরফে কোনও কিছু এখনও পর্যন্ত জানানো হয়নি।

অন্যদিকে এই ঘটনার পরে পাকিস্তানে নিযুক্ত বিদেশি কূটনীতিকদেরকে ভারত এবং পাকিস্তানের সীমান্ত রেখার পরিস্থিতি সরেজমিনে ঘুরে দেখাল ইসলামাবাদ। এলাকার বাস্তব পরিস্থিতি দেখাতেই পাকিস্তানে নিযুক্ত সমস্ত বিদেশি কূটনীতিদের গোটা এলাকা ঘুরিয়ে দেখান পাক সরকারি আধিকারিকরা। যদিও সূত্রের খবর, ভারতীয় সেনার প্রত্যাঘাতের পর গোটা এলাকা যুদ্ধকালীন তৎপরতায় স্বাভাবিক করে তোলে পাকসেনা। বিশেষ করে যে সমস্ত জঙ্গি ঘাঁটিগুলি ভারতীয় সেনার আঘাতে ধ্বংস হয়ে গিয়েছে তা সরিয়ে ফেলা হয় বলে জানা যাচ্ছে। বিদেশি এই কূটনীতিদের পাশাপাশি সীমান্ত পরিস্থিতি দেখার জন্য পাকিস্তানে নিযুক্ত ভারতের ডেপুটি হাইকমিশনারকেও আমন্ত্রণ জানিয়েছিল ইসলামাবাদ। তবে ভারতের ডেপুটি হাইকমিশনার গৌরব আহলুওয়ালা বিদেশি কূটনীতিকদের সঙ্গে সীমান্ত পরিস্থিতি দেখতে যান নি।

এর আগে, গত রবিবার আহলুওয়ালাকে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে আমন্ত্রণ জানানোর পর মঙ্গলবার তিনি বলেছিলেন, তিনি আমন্ত্রণ পেয়েছেন। তবে সীমান্ত পরিস্থিতি দেখতে যাবেন কিনা তা পরে জানাবেন। কিন্তু শেষমেশ তিনি যাননি বলেই জানা যাচ্ছে। অন্যদিকে ভারতীয় কূটনীতিকের পরিদর্শন টিমে যোগ না দেওয়া প্রসঙ্গে পাক বিদেশ দফতরের মুখপাত্র ড. মুহাম্মাদ ফয়সাল জানিয়েছেন যে, সীমান্ত রেখা বরাবর জঙ্গিদের আস্তানা গুঁড়িয়ে দেওয়ার ব্যাপারে ভারতে দাবি করেছে তা দাবি হিসেবেই থাকলো, আসলে বাস্তবের সঙ্গে ওই দাবির কোনো মিল নেই। যদিও ফয়সালের এই দাবি সম্পূর্ণ খারিজ করে দিয়েছে ভারত।