কলকাতা: পড়শি ক্লাব ইতিমধ্যেই নাম লিখিয়ে ফেলেছে দেশের সর্বোচ্চ লিগে। অথচ অতিমারির জাঁতাকলে পড়ে আসন্ন মরশুমে ক্রমেই ক্ষীণ হচ্ছে ইস্টবেঙ্গলের আইএসএল খেলার স্বপ্ন। কোয়াসের থেকে স্পোর্টিং রাইটস ফিরে পেলেও এমন কোনও ইনভেস্টর লাল-হলুদ পাচ্ছে না যারা ২০০ কোটির ব্যাঙ্ক গ্যারান্টি দিয়ে শতবর্ষে পা দেওয়া ইস্টবেঙ্গলকে সেরা সেন্টেনারি উপহারটা দেবে।

সমর্থকরাও ধৈর্য্য হারাচ্ছেন। আইএসএল আয়োজক এফএসডিএল আবার ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে আসন্ন মরশুমে নতুন কোনও দল নয় ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টে। এমন সময় শতবর্ষের সকালে ম্যাড়ম্যাড়ে অনুষ্ঠানে যেন প্রাণ আনলেন আদরের ‘ভোম্বল’। ক্লাবের শতবর্ষের অনুষ্ঠানে তাঁর স্বল্প ভাষণে এফএসডিএল বা আইএসএলের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন আসিয়ান জয়ী কোচ।

সুভাষ ভৌমিক জানালেন, ইস্টবেঙ্গল অপেক্ষা করবে না বরং আইএসএল অপেক্ষা করবে ইস্টবেঙ্গলের জন্য। এই প্রসঙ্গে ক্লাব কর্তাদের উদ্দেশ্যে আসিয়ান কাপ ও জাতীয় লিগ জয়ী কোচ এবং ক্লাবের প্রাক্তন ফুটবলারটি বলেন, ‘আপনারা আইএসএল আইএসএল করে দয়া করে নিজেদের লক্ষ্য নষ্ট করবেন না।

আসন্ন মরশুমে আই লিগ খেলতে হলে আই লিগই খেলবে ইস্টবেঙ্গল। আই লিগ জিতবে ইস্টবেঙ্গল। আইএসএলে বসে থাকুক সব। তারপর ইস্টবেঙ্গল আসছে।’

এপ্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘আমরা কেউ বিধির বিরুদ্ধে যেতে পারি না। বিধির বিরুদ্ধে যাওয়া সম্ভব হলে কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধে কর্ণ বিজয়ী হতেন, অর্জুন নন।’ একইসঙ্গে হুঙ্কার ছেড়ে তিনি বলেন, ‘ভারতীয় ফুটবলে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব যা করেছে অন্য ক্লাব তাঁর অর্ধেক করে দেখাক। তিনটে বিদেশি টুর্নামেন্ট অন্য কোনও দল জিতুক তারপর ইস্টবেঙ্গলকে নিয়ে মন্তব্য করতে আসবে।’

সুভাষ ভৌমিকের কথায়, গতবছর যেভাবে শতবর্ষের অনুষ্ঠানে পদার্পণ করেছিল ক্লাব তাতে আমরা কেউ ভাবিনি একবছর পর এসে এমন দিন দেখতে হবে। পরিচালন সমিতির মাথায় নানা পরিকল্পনা ছিল কিন্তু অতিমারি সব ভেস্তে দিল। এমনটাই জানিয়েছেন আসিয়ান জয়ী কোচ।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ