মুম্বই- বুধবার সুশান্ত সিং রাজপুত সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করেন এনসিপি নেতা মাজীদ মেমন। মাজীদ মেমন দাবি করেছেন, জীবিত অবস্থায় সুশান্ত এতো জনপ্রিয় ছিলেন না। কিন্তু মৃত্যুর পর তিনি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। এই মন্তব্য করতেই নেটদুনিয়ায় রীতিমতো নিন্দার ঝড় ওঠে। এনসিপি নেতার এই মন্তব্যের যথাযথ জবাব দিয়েছেন আইনজীবী ইসকরণ সিং।

ইসকরন সিং বলেছেন, সুবিচার পেতে একজন মানুষকে বিখ্যাত হতে হয় না। এনসিপি নেতা মাজীদ মেমন বলেছিলেন, এই মুহূর্তে সুশান্ত সিং রাজপুতকে নিয়ে যা চর্চা হচ্ছে তা ভারতের প্রধানমন্ত্রী বা মার্কিন প্রেসিডেন্টকে নিয়েও হয় না। এই মন্তব্য ঘিরে নিন্দা হয় নেট দুনিয়ায়। মুম্বই পুলিশকে কিছুটা সমর্থন করেই আরো একটি টুইট করেন মাজীদ মেমন। এমনই মনে করছেন অনেকে।

টুইটারে তিনি লেখেন, “যখন একটি অপরাধের তদন্ত চলে তখন কিছু জিনিস গোপন রাখতে হয়। তদন্তে কী কী হচ্ছে, কীভাবে হচ্ছে সমস্ত তথ্য যদি প্রকাশ করা হয় তাহলে সত্যতা ও সুবিচার সম্পর্কে মানুষের আগ্রহ কমতে থাকে।” রিপাবলিক টিভি মাজীদ মেমনের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করলে, তিনি বলেন সুশান্তের ব্যাপারে তিনি কোনো অপমানজনক কথা বলেননি।

এনসিপি নেতা বলেন, “আমি কোনো অপমানজনক কথা বলিনি। সুশান্ত জনপ্রিয় ছিলেন এবং মৃত্যুর পর তিনি আরো জনপ্রিয় হয়েছেন। কিন্তু আমি বা আপনি কোনো পুলিশ আধিকারিককে প্রশ্ন করতে পারি না কারণ কেন্দ্রের কিছু নিয়ম কানুন আছে। সেই নিয়ম অনুযায়ী পুলিশ তার কর্তব্য পালন করবে আর সেই বিষয়ে সংবাদমাধ্যমে সব সময় ঢাক পেটানো উচিত নয়।”

এনসিপি নেতা আর মন্তব্যের পাল্টা জবাব দিয়ে আইনজীবী ইসকরণ সিং একটি টুইট করেন। তিনি লেখেন, “প্রিয় এনসিপি। সুবিচার পাওয়ার জন্য একজন মানুষকে জনপ্রিয় হতে হয় না।

প্রসঙ্গত সুশান্ত সিং রাজপুত ভারতে ও সারা বিশ্বে জনপ্রিয় ছিলেন এবং রয়েছেন।” ইসকরণ সিং এর এই মন্তব্য মন জয় করেছে নেটিজেনদের। একদিকে তারা যেমন এনসিপি নেতা আর মন্তব্যের কড়া নিন্দা করছেন, এমনই ইস করণ সিং ভান্ডারীর এই পালটা জবাবের বাহবা দিচ্ছেন সুশান্তের অনুরাগীরা।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা