অনেক আধ্যাত্মিকতায় বিশ্বাস করেন। মিরাকল হতে পারে, এমনটাও মনে করেন অনেকে। ভগবানের কাছে কিছু প্রার্থন করলেন, আর সেটা সত্যিই হল এমন ঘটনাও তো কম ঘটে না। আমরা বিশ্বাস করি ভগবান সত্যিই আমাদের সব কথা শোনেন ও সব ইচ্ছে পূরণ করেন। পুরাকালে মুনি-ঋষিরা বিশ্বাস করতেন প্রত্যেকটা দিনে একটি ‘ব্রাহ্মমুহূর্ত’, সেইসময় কোনও ইচ্ছা বা প্রার্থনা করলে ফল মিলবেই।

হিন্দিতে কেউ বলেন, ‘জিভাপে সরস্বতী বিরাজমান হোনা’। আর বাংলায় একটা কথা প্রচলিত আছে ‘কথার উপর তথাস্তু বসে থাকে’। তবে কি এর অর্থ? কোন সময় আসলে ‘ব্রাহ্মমুহূর্ত’? বলা হয় ঠিক ওই সময়েই আপনার মনের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ তৈরি হয় ভগবানের। যদিও এই তত্ত্ব প্রমাণ করার জন্য কোনও বৈদিক যুক্তি নেই। তবে জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের মতে এক বিশেষ অঙ্ক কষে ওই সময় বের করা সম্ভব।

উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, ধরা যাক এটা ৩ সেপ্টেম্বর। এই দিনের ‘ব্রাহ্মমুহূর্ত’ বা গোল্ডেন টাইম হল, ০৩:০৯ অর্থাৎ ঘড়িতে তিনটে নয় বাজলেই আসবে এই মুহূর্ত। আবার ধরুন, ২০ সেপ্টেম্বর হলে, মুহূর্তটি হবে ২০:০৯ অর্থাৎ রাত আটটা নয় মিনিট। আর তারিখটি যদি ২৫ থেকে ৩১-এর মধ্যে হয় তাহলে উল্টো করে অঙ্ক কষতে হবে। অর্থাৎ ২৯ সেপ্টেম্বর হলে হবে ৯:২৯ অর্থাৎ ৯টা বেজে ২৯ মিনিট।