মস্কো: ইরানের অশান্তি ও হাঙ্গামাকারীদের প্রতি মার্কিন বিদেশমন্ত্রী মাইক পম্পেও সমর্থন জানানোকে ‘ভণ্ডামি’ বলে তীব্র নিন্দা করল রাশিয়া। রুশ বিদেশ মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভার জানিয়েছেন, পম্পেও’র বক্তব্যে রাশিয়া অবাক হয়েছে কারণ, ইরানে আমেরিকার জন্যই বিক্ষোভ অশান্তির ঘটনা ঘটেছে।

জাখারোভার বক্তব্য, ইরানের উপর আমেরিকার ‘অবৈধ অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার জন্যই তেহরান তেলের দাম বাড়াতে বাধ্য হয়েছে। আর তারই জেরে ইরানে কিছু লোক ভাঙচুর অশান্তিতে লিপ্ত হয়৷ এদিকে মার্কিন সরকার ইরানি জনগণের পাশে থাকার দাবি করছে অথচ ইরানের জনগণের উপর মার্কিন সরকারের ওষুধ ও খাদ্য নিষেধাজ্ঞা বহাল রয়েছে।

সম্প্রতি মার্কিন বিদেশমন্ত্রী মাইক পম্পেও ইরানের একদল দুষ্কৃতকারীদের সমর্থন জানিয়ে টুইটারে বার্তা দেওয়ায় মার্কিন হস্তক্ষেপকামিতার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে তেহরান। মার্কিন গোয়েন্দা-প্রধান পম্পেও বলেছিলেন, ইরানি জাতিকে নতজানু করতে তাদেরকে অবশ্যই ক্ষুধার শিকার করতে হবে৷ ইরানের জনগণের উপর ওয়াশিংটনের সর্বোচ্চ অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞাকে অর্থনৈতিক সন্ত্রাস বলে উল্লেখ করছেন ইরানের নেতারা৷

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইরানের মানুষকে ‘সন্ত্রাসী’ অ্যাখ্যা দিয়েছিলেন। মার্কিন সরকার ইরানের জনপ্রিয় মোসাদ্দেক সরকারকে উৎখাত করেছিল। মার্কিন ইঙ্গিতেই ইরাকে সাদ্দাম ইরানের ওপর চাপিয়ে দেয় ৮ বছরের যুদ্ধ। সন্ত্রাসী মোনাফেক গোষ্ঠীসহ নানা ধরনের সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে লেলিয়ে দেওয়ায় ইরানের উচ্চ পর্যায়ের অনেক নেতাসহ লক্ষাধিক জনগনের মৃত্যু অথবা আহত হয়েছেন৷ ফলে এখন ইরানের জনগণের বন্ধু হবার মার্কিন দাবিকে একেবারে মুরগির প্রতি শিয়ালের প্রশংসার মতই ভণ্ডামি লেগেছে রাশিয়ার৷

মার্কিন বিশেষজ্ঞ মহল ও পত্র-পত্রিকাগুলোও স্বীকার করেছে অতীতের সব মার্কিন সরকারের ইরান-বিদ্বেষী নীতিগুলো ব্যর্থ হয়েছে। ইরানের জনগণ এবং সরকারের প্রতিরোধ ট্রাম্পকেও চরম ব্যর্থতার তিক্ত স্বাদ আস্বাদনে বাধ্য করবে বলে মনে করছে বিভিন্নমহল।