তেহরানঃ  সামরিক ক্ষেত্রে ক্রমশ নিজেদের শক্তিধর করে তুলছে তেহরান। একেবারে দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি একের পর এক মিসাইল, ট্যাঙ্ক বানিয়ে রীতিমত বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে ইরানের বিজ্ঞানীরা। যদিও থেমে নেই তারা, সামরিক ক্ষেত্রে একের পর এক আবিষ্কার করে যাচ্ছে ইরান। এবার সে দেশের সামরিক বিজ্ঞানীদের লক্ষ্য অত্যাধুনিক এক স্পিড বোট তৈরি করা। যা চলবে ঘন্টায় ১০০ নটিক্যাল মাইল বা ১৮৫ কিলোমিটার বেগে।

এই প্রসঙ্গে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র নৌ শাখার কমান্ডার রিয়ার অ্যাডমিরাল আলী রেজা তাংসিরি জানিয়েছেন, তার দেশ এমন স্পিডবোট তৈরি করতে যাচ্ছে যা ঘণ্টায় ১০০ নটিক্যাল মাইল বা ১৮৫ কিলোমিটার বেগে চলতে পারবে। শুধু তাই নয়, তা হবে একেবারে অত্যাধুনিক।

সম্প্রতি ইরানের উত্তরাঞ্চলীয় রাশ্‌ত শহরে পরিদর্শনে যান নৌ শাখার কমান্ডার। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, খুব শিগগিরই ইরানি বিশেষজ্ঞরা নিজস্ব সক্ষমতা ও দেশীয় প্রযুক্তির মাধ্যমে এই স্পিডবোটের নির্মাণকাজ শুরু করবেন।

তিনি আরও বলেন, “৯০ নটিক্যাল মাইল বেগে চলতে পারে এমন স্পিড বোট প্রকাশ্যে নিয়ে আসা হচ্ছে।” সাংবাদিকদের ইরান সেনাবাহিনীর এক আধিকারিক বলেন, পারস্য উপসাগরে বিদেশি সেনাদের উপস্থিতি এই অঞ্চলকে নিরাপত্তাহীন করা ছাড়া আর কিছু দেয় নি। অ্যাডমিরাল তাংসিরি বলেন, বাইরের শক্তিগুলো তাদের অবৈধ উপস্থিতিকে নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠার অযুহাতে বৈধতা দেওয়ার চেষ্টা করে, অন্যদিকে তারা তাদের অস্ত্র বিক্রির জন্য যুদ্ধে লিপ্ত হয়। অ্যাডমিরাল তাংসিরি জোর দিয়ে বলেন, “পারস্য উপসাগরের নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্ব একমাত্র অঞ্চলের দেশগুলোর। আমরা এ বিষয়ে বারবার পারস্য উপসাগরীয় এলাকার দেশগুলোকে এই বার্তা তাদের চেষ্টা করেছি যে, আমরা নিজেরাই সম্মিলিতভাবে এ অঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারি।”