তেহরানঃ  ইরানের তেল বিক্রি শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনার যে ঘোষণা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দিয়েছেন তার জবাব কড়া ভাষায় দিয়েছে তেহরান। ইরানের তরফে জানানো হয়েছে, ইরানের তেল রফতানির ব্যাপারে এই ঘোষণা বাস্তবায়নে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হবে আমেরিকা। তেল রফতানিকারক দেশগুলোর সংস্থা ওপেকে নিযুক্ত ইরানের প্রতিনিধি এমনটাই জানিয়েছেন।

তিনি রয়টার্সকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, তার দেশের তেল রফতানি শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হবে আমেরিকা। এর কারণ হিসেবে ইরানি রাষ্ট্রদূত হোসেইন কাজেমপুর আরদাবিলি বলেন, বিশ্ববাজারে ইরানের তেল সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেলে অন্যান্য তেল রফতানিকারক দেশের পক্ষে সে ঘাটতি পূরণ করা সম্ভব হবে না।

ওপেকে নিযুক্ত ইরানি রাষ্টদূত বলেন, বিশ্বের কোনও তেল উৎপাদনকারী দেশ দীর্ঘমেয়াদে অন্য দেশের তেলের ঘাটতি পূরণ করতে সক্ষম নয়। সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্ব বাজারে তেলের সরবরাহ কমে যাওয়ার পর এই পণ্যের দাম হু হ করে বাড়তে শুরু করেছে। গত কয়েকদিনে আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম ৮০ ডলার ছাড়িয়ে গেছে। গত এপ্রিল মাসের পর তেলের দামে এটি সর্বোচ্চ রেকর্ড।

মার্কিন সরকার গত ২০ আগস্ট ঘোষণা করে, ইরানের বিরুদ্ধে তেল নিষেধাজ্ঞার প্রভাব যাতে বিশ্ববাজারে না পড়ে সেজন্য আমেরিকা জরুরি তেলের মজুদ থেকে এক কোটি ১০ লাখ ব্যারেল তেল আন্তর্জাতিক বাজারে ছেড়ে দেবে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প গত এপ্রিলে ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে তার দেশকে বের করে নেয়ার পর ঘোষণা করেছিলেন, ইরানের তেল বিক্রি শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনবে ওয়াশিংটন।#