তেহরান:  আরও তিনটি ক্রুজ মিসাইল ছুঁড়ল ইরান। কল্পিত শত্রুর নৌযান টার্গেট করে তিনটি মিসাইল নিক্ষেপ করেছে ইরানের নৌবাহিনী। ইরান নৌবাহিনীর মহড়ার দ্বিতীয় দিনে একের পর এক মিসাইলের পরীক্ষা করেছে নৌবাহিনী। ‘কাদের’ ও ‘কাদির’ নামের এসব ক্ষেপণাস্ত্র নিখুঁতভাবে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হেনেছে। এমনটাই তথ্য জানিয়েছেন মহড়ার মুখপাত্র রিয়ার অ্যাডমিরাল হামজা আলী কাভিয়ানি।

তিনি আরও বলেছেন, কল্পিত শত্রুর ডেস্ট্রয়ার ও ক্ষেপণাস্ত্রবাহী নৌযান ধ্বংসের মহড়া চালানো হয় এসব ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে। প্রত্যাশা অনুযায়ী ক্ষেপণাস্ত্রগুলো কল্পিত শত্রুর ডেস্ট্রয়ারসহ নৌযানগুলো ধ্বংস করতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়া উপকূল থেকে সাগরের জলেও একটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়েছে। এক্ষেত্রেও ক্ষেপণাস্ত্র নিখুঁতভাবে কাজ করেছে।

রিয়ার অ্যাডমিরাল কাভিয়ানি বলেছেন, মহড়ায় ব্যবহৃত ‘কাদের’ ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্লা হচ্ছে আড়াইশ’ কিলোমিটার। আর ‘কাদির’ ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্লা তিনশ’ কিলোমিটার। উভয় ক্ষেপণাস্ত্রই নৌযান, উপকূল এবং বিমান থেকে নিক্ষেপ করা সম্ভব।

প্রসঙ্গত, ইরানের নৌবাহিনী ওমান সাগর ও পারস্য-উপসাগরে তিন দিনের এই বিশাল নৌ-মহড়া শুরু করেছে। ‘বেলায়াত-৯৭’ সাংকেতিক নামের এই মহড়া চালানো হচ্ছে হরমুজ প্রণালী থেকে শুরু করে ইরানের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত মাকরান-উপকূলবর্তী ওমান সাগর ও ভারত মহাসাগরের উত্তরাঞ্চল জুড়ে মোট বিশ লাখ বর্গকিলোমিটার এলাকায়।