তেহরান: দুনিয়ার সামনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি তীব্র আক্রমণাত্মক ভাষণ। সেই সঙ্গে প্রতিরোধের বার্তা দেওয়া। আট বছর পর প্রকাশ্যে এমনই ভাষণ দিলেন ইরানি সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনেই।
শুক্রবার ধর্মীয় দিন তথা জু্ম্মা। এমনই দিনে আন্তর্জাতিক স্তরে কড়া বার্তা দিল ইরান। খামেনেই বলেন, আমেরিকা নিজেকে সর্বোচ্চ শক্তি বলে দাবি করে দম্ভ দেখায়। ইরানি সেনার ক্ষেপণাস্ত্র তাদের সেই দম্ভে আঘাত করেছে।
ওয়াশিংটন থেকে ভাষণে সরাসরি যুদ্ধের প্রসঙ্গ এড়িয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এরপর ইরান ও আমেরিকার মধ্যে সংঘাতের আবহে খামেনেই কী বলেন তা জানতে মুুুুখিয়ে ছিল আন্তর্জাতিক মঞ্চ।
ট্রাম্প ইরানের পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেন। আর খামেনেই তাঁর ভাষণে বলেন, ইরানকে আরও ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ হতে হবে। তিনি বলেন, ইরাকের মাটিতে মার্কিন সেনা ঘাঁটিতে ইরানি হামলা আমেরিকার গর্বে আঘাত করেছে।
খামেনেই আরও বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আমাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরও কঠোর করবে। কিন্তু এসবের মাধ্যমে তারা তাদের হারানো সম্মান ফিরে পাবে না।
এদিকে তেহরানের সংবাদ মাধ্য়মের দাবি, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় কেউ হতাহত হয়নি বলে দাবি করেছিল মার্কিন সরকার।
এই অবস্থান থেকে সরছে আমেরিকা। কারণ, মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ডের মুখপাত্র ক্যাপ্টেন বিল উরবান দাবি করেছেন, ইরানি হামলায় কোনও মার্কিন সেনা নিহত হয়নি। তবে আইন আল-আসাদ ঘাঁটিতে আহত সেনাদের চিকিৎসা চলছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ