ফাইল ছবি

তেহরান:  ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি পারস্য উপসাগরীয় এলাকায় বিশাল আকারের ড্রোনের যুদ্ধ মহড়া চালাল। মহড়ায় কয়েক ডজন ড্রোন অংশ নিয়েছিল। যার মধ্যে ১০টি আরকিউ-১৭০ ড্রোন ছিল। ২০১১ সালে ইরান আমেরিকার এই ড্রোন হ্যাক করার পর আটক করে। এরপর তেহরান নিজেই এই ড্রোন উৎপাদন করে।

আআরজিসি’র ড্রোন মহড়ার নাম দেওয়া হয়েছে ‘টুওয়ার্ডস আল-কুদস ১’। মহড়ার দায়িত্বে রয়েছে আইআরজিসি’র আকাশ প্রতিরক্ষা ডিভিশন। এতে উপস্থিত ছিলেন আইআরজিসি’র শীর্ষ পর্যায়ের আধিকারিকরা। এই প্রথম ইরানের সামরিক বাহিনী উচ্চ প্রযুক্তির ড্রোনের মহড়া চালালো। ড্রোন মহড়ার পাশাপাশি যুদ্ধবিমানও কসরত দেখায়।

ফাইল ছবি

এসব বিমান ১০০০ কিলোমিটার পথ উড়ে যায় এবং সঠিক সময়ে সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করে। মহড়ায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে আইআরজিসি’র সেকেন্ড ইন-কমান্ড ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হোসেইন সালামি বলেন, ড্রোন মহড়ার মাধ্যমে আবারও প্রমাণিত হয়েছে যে, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ব্যর্থ হয়েছে।