তেহরানঃ ফের উত্তেজনা আমেরিকা এবং তেহরানের মধ্যে। নতুন করে ফের হামলার হুঁশিয়ারি ইরান সেনা আধিকারিকের। ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী আইআরজিসি’র প্রধান মেজর জেনারেল হোসেন সালামির হুঁশিয়ারি, জেনারেল কাসেম সোলাইমানি যখন ইজরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধের ময়দানে প্রবেশ করেন তখন ফিলিস্তিনিরা পাথর ছুড়ে যুদ্ধ করতো, কিন্তু তিনি এমন কাজ করেছেন যার ফলে আজ ফিলিস্তিনের গাজা, পশ্চিম তীর এবং উত্তর ফিলিস্তিনীদের জন্য অগ্নিগর্ভে পরিণত হয়েছে এবং ইজরায়েল বন্দিদশার মধ্যে পড়ে গিয়েছে। তিনি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানী তেহরানে এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এমনটাই মন্তব্য করেছেন।

হোসেন সালামি আরও বলেন, যেখানেই মানুষ নির্যাতিত হতেন কাসেম সুলাইমানি ও তার যোদ্ধারা সেখানেই উপস্থিত হতেন। লড়াই করতেন। তিনি ও তার বাহিনী গোটা মুসলিম উম্মাহর ঢাল হিসেবে কাজ করেছেন।

আইআরজিসি’র কমান্ডার আরও বলেন, ইজরায়েলের সঙ্গে লেবাননের যুদ্ধের সময় জেনারেল সোলাইমানি ময়দানে উপস্থিত ছিলেন। তার জীবন ঝুঁকির মধ্যে ছিল। জীবনের ঝুঁকি নেওয়া্ই ছিল তাঁর শিল্প। আইআরজিসি’র কমান্ডার ইজরায়েলের এক আধিকারিককে সাম্প্রতিক বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আমি ইজরায়েলকে বলছি তোমরা যদি একটু ভুল করো তাহলে তোমাদের উভয়কে অর্থাৎ আমেরিকা ও ইজরাইলকে একসঙ্গে আঘাত করা হবে। ইজরায়েলের এক আধিকারিক সম্প্রতি বলেছেন, তারা সিরিয়া ও ইরাকে ইরানিদের হত্যা করার জন্য কাজ ভাগ করে নিয়েছে।

অন্যদিকে, ইরাকের মার্কিন সেনা ঘাঁটিতে রকেট হামলা চলল। কিরকুক নামে এক প্রত্যন্ত অঞ্চলে ওই সেনা ঘাঁট। গট বছরের অক্টোবর থেকে এই নিয়ে পরপর ২০ বার রকেট হামলা চলল ইরাকে। সূত্রের খবর ইরাকের স্থানীয় সময় সনন্ধে ৮ টা ৩৫ মিনিট নাগাদ ওই রকেট হামলা চালানো হয়েছে। তবে হতাহতের কোনও খবর নেই। যে লঞ্চপ্যাড থেকে রকেট হামলা করা হয়েছে, সেখানে আরও ১১টি রকেট মজুত আছে বলে খবর। সেনা ঘাঁটি থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরেই ওই লঞ্চপ্যাড। ‘কাতায়েব হিজবুল্লা ওই হামলা চালিয়েছে বলে দাবি আমেরিকার। রবিবার ইরাকের বালাদ এয়ার বেসের ভিতরে মোট সাতটি মর্টার হামলা করা হয়। যার ফলে কমপক্ষে ৪ জন সেনা আহত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।