তেহরানঃ একাধিক ইস্যুতে আমেরিকার সঙ্গে ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকেছে। অবস্থা এমন জায়গায় এসে পৌঁছেছে যে দুই দেশ একে অপরকে লাগাতার যুদ্ধের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। যা নিয়ে গোটা বিশ্বে তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়েছে। সামরিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ মতে, ইরান এবং আমেরিকার মধ্যে আগামিদিনে যুদ্ধ পরিস্থিতি তৈরি হলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। এই অবস্থায় ফের একবার আমেরিকাকে হুঁশিয়ারি তেহরানের।

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সেনাবাহিনীর প্রধান কমান্ডার মেজর জেনারেল আবদুর রহিম মুসাভি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, তাঁর দেশ অর্থাৎ ইরানের বিরুদ্ধে শত্রুর যে কোনও ধরনের হুমকির দাঁতভাঙা জবাব দেওয়া হবে।

ইরানের দক্ষিণের বুশেহর শহরে বিমান প্রতিরক্ষা ইউনিট পরিদর্শনে যান জেনারেল মুসাভি। সেখানে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে একথা বলেন। তিনি বলেন, আমরা গত ৪০ বছর ধরে পারস্য উপসাগরের নিরাপত্তা রক্ষা করে আসছি। আগামিদিনেও আমরা পূর্ণ শক্তি নিয়ে কাজ করে যাব। আমেরিকা যদি কোনও ধরনের হুমকি সৃষ্টির চেষ্টা করে তাহলে যে কোনও হুমকির কঠোর জবাব দেওয়া হবে।

ইরানের জেনারেল বলেন, গত ৪০ বছর ধরে ইরানের সশস্ত্র বাহিনী পারস্য উপসাগরীয় এলাকার নিরাপত্তা রক্ষা করেছে এবং এখনও আঞ্চলিক দেশগুলোর সহযোগিতা নিয়ে এই অঞ্চলকে বিশ্বের সবচেয়ে নিরাপদ স্থান হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব। ইরানের বিমান বাহিনীর প্রস্তুতি সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ইরানের সামরিক বাহিনী সব সময় প্রস্তুত রয়েছে এবং দেশের বিরুদ্ধে যে কোনও ধরনের হুমকিকে সমূলে বিনাশ করার জন্য প্রস্তুত।

ইসলামি বিপ্লবের আদর্শ ধারণ করে ইরানের স্থলসীমান্ত, আকাশসীমা এবং ইরানি জাতিকে রক্ষা করতে সশস্ত্র বাহিনী পরিপূর্ণভাবে প্রস্তুত রয়েছে। তিনি আরও জানান, ইরানের সামরিক বাহিনী এবং বিপ্লবী গার্ড বাহিনী সমন্বয়ের মাধ্যমে সামরিক অঙ্গনে কাজ করে যাচ্ছে। আগামী দিনেও তা করে যাবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন সেনাপ্রধান।