স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: দাদার মৃত্যুর কারণ দেখিয়ে সিবিআইয়ের কাছে সময় চাইলেন ইকবাল আহমেদ। সোমবার বিকেলে আইনজীবী মারফত সিবিআইকে জানান, দিন কয়েক আগেই তাঁর দাদা তথা সাংসদ সুলতান আহমেদের মৃত্যু হয়েছে। ইকবালের আইনজীবী দানিশ হক সিবিআইয়ের দফতরে এসে জানান, সুলতান আহমেদের মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ গোটা পরিবার৷ পারলৌকিক কাজে তাঁর মক্কেল ব্যস্ত রয়েছেন। আগামী ৪০ দিনের মধ্যে তাঁর পক্ষে হাজিরা দেওয়া সম্ভব নয়। পাশাপাশি, দানিশ এদিন সিবিআইকে সুলতানের মৃত্যুর কথাও জানান। এই মামলায় অভিযুক্ত সুলতানের কী করনীয় তা জানতে চাওয়া হয়৷

এর আগেও গত শুক্রবার নিজাম প্যালেসে সিবিআই হাজিরা এড়ান ইকবাল আহমেদ৷ নারদকাণ্ডে হাজিরার জন্য সিবিআইয়ের কাছে তখনও এক সপ্তাহ সময় চান তৃণমূল বিধায়ক৷ অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে তখন সময় সিবিআইকে চিঠি পাঠিয়ে সময় চান তিনি৷ আজও, হাজিরার জন্য সময় চেয়ে আইনজীবীর মারফত সিবিআইকে চিঠি দেন ইকবাল আহমেদ৷

নারদ স্টিং অপরেশনে কী ভূমিকা? ম্যাথু স্যামুয়েলের সঙ্গে তাঁর কীভাবে যোগাযোগ হয়? হাইকোর্টের খোঁচায় তথ্য সন্ধানে তৎপর সিবিআই। এর আগে খানাকুলের বিধায়ক ইকবাল আহমেদকে নোটিস পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। নারদকাণ্ডে ১৩ অভিযুক্তের মধ্যে প্রথম তাঁকেই নোটিস পাঠায় সিবিআই। গত ১৬ এপ্রিল নারদ তদন্তে ১৩ জনের নামে এফআইআর করে সিবিআই। এরপর ম্যাথু স্যামুয়েলকে কয়েকবার তলব করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।