মুম্বই: ২০২০ আইপিএল টাইটেল স্পনসরশিপের জন্য আগ্রহ দেখাল টাটা গ্রুপ৷ অর্থাৎ বাবা রামদেবের পতঞ্জলি, শিক্ষা প্রযুক্তি সংস্থা আনাকাডেমি৷ ফ্যান্টাসি স্পোর্টস প্ল্যাটফর্ম ড্রিম ১১-এর পর বিড জমা দিতে চলেছে দেশের বৃহত্তম এই শিল্প গোষ্ঠী৷ কারণ টাটা গ্রুপ চলতি আইপিএলে শিরোনামের স্পনসর হওয়ার জন্য ‘এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট’ জমা দিয়েছে।

শুক্রবার ছিল বিসিসিআই-তে ‘EOI’ অর্থাৎ ‘এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট’ জমা জমা দেওয়ার শেষ তারিখ। আইপিএল এই বছর সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে শুরু হতে চলেছে ১৯ সেপ্টেম্বর৷ ফাইনাল ১০ নভেম্বর৷ অর্থাৎ এবারের আইপিএল টাইটেল স্পনসরের জন্য সর্বোচ্চ বিডদাতার ৪ মাস ১৩ দিন ধরে অধিকার থাকবে।

টাটা গ্রুপের মাঠে নামার ফলে ১৮ অগস্টের বিডের লড়াই অত্যন্ত আকর্ষণীয় করে তুলেছে৷ কারণ বিসিসিআই আশা করছে যে অধিকারের মেয়াদ খুব অল্প সময়ের মধ্যে থাকলেও বিজয়ী বিড ভিভোর ৪৪০ কোটি টাকার বার্ষিক চুক্তির চেয়ে খুব কম হবে না।

টাটা গ্রুপের এক মুখপাত্র পিটিআই-কে জানিয়েছেন, ‘হ্যাঁ, টাটা গ্রুপ তাদের আইপিএল শিরোনাম অধিকার কিনতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে৷’ বিসিসিআই-এর একটি সূত্র এর আগে অন্য দু’টি সংস্থার থেকে ইওআই জমা দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

বোর্ডের আধিকারিক জানান, ‘EOI জমা দেওয়ার সময় বিডের পরিমাণ উল্লেখ করতে হয় না৷ এটি ১৮ অগস্ট প্রেরণ করতে হবে৷ ইওআই সরবরাহের পরে, বিসিসিআই আগ্রহী তৃতীয় পক্ষকে অধিকার, পণ্য বিভাগ এবং এনটাইটেলমেন্টগুলি অবহিত করবে। ১৮ অগস্ট সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টার মধ্যে চূড়ান্ত বিড eoi@bcci.tv-এ আপলোড করা হবে৷

যোগগুরু বাবা রামদেবের পতঞ্জলি এবং জিও স্পনসরশিপের লড়াইয়ে নেমেছে৷ তবে এই দু’টি নাম নিয়ে বিসিসিআই থেকে এখনও কোনও নিশ্চয়তা আসেনি। বোর্ড স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, কোন সংস্থা উচ্চ-মূল্যবান ব্র্যান্ডের জন্য তার পরিকল্পনায় সন্তুষ্ট না-হলে সর্বোচ্চ বিডদাতাকে শিরোনামের স্পনসরশিপ না-পাওয়া যেতে পারে।

অনেক সময়, কিছু অজানা সংস্থা অপ্রাসঙ্গিক বিড করতে পারে৷ কিন্তু তাদের বিশ্বাসযোগ্যতা সম্পর্কে প্রশ্ন থাকলে বা যদি কোনও সংস্থায় বিশাল অংকের চিনা বিনিয়োগ থাকলে তা বিবেচিত হবে না৷

ভারত-চিন রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে চলতি বছর আইপিএল থেকে সরে দাঁড়িয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগের টাইটেল স্পনসর থেকে সরে গিয়েছে চিনা মোবাইল সংস্থা ভিভো৷ বিসিসিআইও ভিভো-কে এই বছরের জন্য সাসপেন্ড করেছে৷ প্রতি বছর টাইটেল স্পনসর হিসেবে ভিভো ৪৪০ কোটি টাকা বোর্ডকে দিত৷ ২০২০ আইপিএলে অর্থাৎ ৪ মাস ১৩ দিনের জন্য বিসিসিআই কমপক্ষে ৩০০ থেকে ৩৫০ কোটি টাকার মধ্যে টাইটেল স্পনসরের টেন্ডার ডেকেছে৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও