কলকাতা: আইপিএল-এ গত এক দশকে বেশ কয়েকটি দলে খেলেও ত্রয়োদশ সংস্করণের নিলামে অবিক্রিত থেকে গিয়েছেন মনোজ তিওয়ারি৷ আইপিএল-এ দল না-পাওয়ার যন্ত্রণায় ছটফট করেছেন৷ সোমবার প্রথমশ্রেণির ক্রিকেটে প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরি করে তা ব্যক্ত করলেন বাংলার প্রাক্তন অধিনায়ক৷

গত মাসে কলকাতায় আইপিএল নিলামে বাংলার এই ব্যাটসম্যানকে কিনতে আগ্রহ দেখায়নি কোনও ফ্র্যাঞ্চাইজি৷ আইপিএল-এ দল না-পাওয়াটা তাঁর কাছে কতটা যন্ত্রণাদায়ক ছিল এদিন তা নিজে মুখেই জানালেন মনোজ৷ হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে রঞ্জি ট্রফিতে ট্রিপল সেঞ্চুরি করে উঠে তিনি জানান, ‘এ বারের আইপিএল-এ আমি খেলব না, এটা মেনে নেওয়া আমার পক্ষে খুবই কঠিন ছিল। কিন্তু এটাই বাস্তব। তরুণ ক্রিকেটাররা আইপিএল খেলছে, আর আমি তা বাড়িতে বসে দেখছি৷ এটা খুবই যন্ত্রণাদায়ক৷ এই শটগুলো আমিও মারতে পারি৷ তাই আমার পক্ষে এটা মেনে নেওয়া কঠিন৷’

কল্যাণীতে ম্যাচের প্রথম দিন ১৫৬ রানে অপরাজিত ছিলেন মনোজ। সোমবার দ্বিতীয়দিন বাইশ গজে প্রথমবার ত্রিশতরানের স্বাদ পেলেন বাংলার এই টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যান৷ জাতীয় নির্বাচকরা তাঁর থেকে মুখ ফিরিয়ে নিলেও ফের ভারতীয় দলে ফেরার আশা দেখেন মেন ইন ব্লু’-র হয়ে এক ডজন ওয়ান ডে ম্যাচ খেলা মনোজ৷

৩৪ বছরের এই টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যান বলেন, ‘এই মুহূর্তে ভারত টানা জিতছে৷ এই মুহূর্তে দলে ঢোকা হয়তো কঠিন৷ কিন্তু এই বিশ্বে সবই সম্ভব৷ আত্মবিশ্বাসই আমার শক্তি৷ আমি সবসময় আশা করি৷ আর বয়স আমার কাছে একটা সংখ্যা মাত্র৷’ এদিন ৩০৩ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন মনোজ। আগের ম্যাচেই ইডেনের গ্রিন টপে অন্ধপ্রদেশের বিরুদ্ধে প্রতিকূল পরিস্থিতিতে ৪৬ রানের ইনিংস খেলেছিলেন বাংলার এই ব্যাটসম্যান৷

এই ইনিংসের কথা উল্লেখ করে মনোজ বলেন, ‘ইডেনে আমার ইনিংসটা ছিল স্পেশাল৷ যে পিচে ভারতীয় টেস্ট দলের ব্যাটসম্যান হনুমা বিহারী ২৩ রান করেছিল, সেখানে আমি এই রান করেছিলাম৷’ তবে জাতীয় দলে নিজের প্রত্যাবর্তন প্রসঙ্গে মনোজ আরও বলেন, ‘এটা আমার পক্ষে বলা কঠিন৷ আমি নিজেকে তো নির্বাচন করতে পারব না৷ কিন্তু যার আট হাজারের বেশি রান এবং ৫০-এর বেশি গড় রয়েছে, তার দু-একটি ইনিংস না-দেখা ধারাবাহিকতা দেখা উচিত৷’

মনোজ দেশের হয়ে শেষ ম্যাচ খেলেছেন পাঁচ বছর আগে৷ ২০১৫ জিম্বাবোয়ে সফরে ভারতীয় দলের হয়ে শেষ ওয়ান ডে খেলেছেন তিনি৷ চার নম্বরে নেমে এই ম্যাচে ১০ রান করেছিলেন মনোজ৷ দেশের হয়ে এখনও পর্যন্ত ১২টি ওয়ান ডে এবং তিনটি টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন বাংলার এই ব্যাটসম্যান৷