মুম্বই: লাদাখের গালওয়ান ভ্যালিতে ভারত ও চিন সৈন্যদের মধ্যে সংঘর্ষের পর দেশজুড়ে চিনা পণ্য বর্জনের ডাক দেওয়া হলেও আইপিএলের টাইটেল স্পনসর চিনা মোবাইল সংস্থা ভিভো’র সঙ্গে এখনই সম্পর্ক ছেদ করতে চায় না বলে জানিয়েছিল বিসিসিআই৷ কিন্তু একদিনের মধ্যে সেই জায়গা থেকে সরে এল ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড৷

বৃহস্পতিবার বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধুমাল পিটিআই-কে জানিয়েছিলেন, ‘আপনি যখন আবেগের সঙ্গে কথা বলবেন, তখন আপনি যুক্তি ত্যাগ করবেন। চিনা কোম্পানির পক্ষে চিনের উদ্দেশ্যে সমর্থন করা বা ভারতের পক্ষে সমর্থন দেওয়ার জন্য চিনা কোম্পানির সহায়তা নেওয়া মধ্যে পার্থক্য বুঝতে হবে৷’

শুধু তাই নয়, এই চিনা সংস্থা থেকে প্রাপ্ত অর্থ ভারতীয় অর্থনীতির সহায়ক বলেও মন্তব্য করেছিলেন বিসিসিআই কোষাধ্যক্ষ৷ আইপিএলের টাইটেল স্পনসর বাবদ প্রতি বছর ৪৪০ কোটি টাকা পায় বিসিসিআই৷ ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের সঙ্গে চিনা এই মোবাইল সংস্থা ভিভো’র পাঁচ বছরের চুক্তি শেষ হওয়ার কথা ২০২২ সালে৷

কিন্তু ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে নিজেদের অবস্থান থেকে সরে এল বিসিসিআই। শনিবার আইপিএল তরফে টুইটে লেখা হয়, লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় সেনাদের মৃত্যুর ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে আইপিএলের স্পনসরশিপ আমরা রিভিউ করতে পারি৷ আগামী সপ্তাহে আইপিএলের গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকে এ নিয়ে আলোচনা হবে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশ জুড়ে চিন-বিরোধী আবেগের কথা মাথায় রাখছে বোর্ড। মনে করা হচ্ছে যে, আইপিএলের টাইটেল স্পনসর ভিভো ছাড়াও পেটিএম, ড্রিম ইলেভেনের মতো আইপিএলের অন্য যে চিনা স্পনসরগুলি নিয়েও আলোচনা হবে বলেও জানা গিয়েছে৷ পেটিএম আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারতের টাইটেল রাইটস হোল্ডার। পাঁচ বছরের জন্য এই চিনা সংস্থার সঙ্গে বিসিসিআই-এর ৩২৬ কোটি টাকার চুক্তি রয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ