নয়াদিল্লি: প্রত্যেকেই নিজের উন্নত ভবিষ্যত চায়। যেখানে অবসর গ্রহণের পরে থাকবে না টাকার কোনও সমস্যা। আর সেই সমস্যা সমাধানে এখন থেকেই বেশিরভাগ মানুষ বিনিয়োগের পরিকল্পনা করে থাকে। এমনিতেই, ক্রমবর্ধমান মূল্যস্ফীতির কারণে মানুষের সংসার চালানো কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে, তাই এখন থেকে অতিরিক্ত আয়ের জন্য পরিকল্পনা করছেন অনেকেই। কিন্তু এক্ষেত্রে সঠিক জায়গায় বিনিয়োগ করা জরুরি।তার জন্যে রয়েছে লাইফ ইন্স্যুরেন্স কর্পোরেশনের (LIC) একটি বিশ্বাসযোগ্য স্কিম, যেখানে বিনিয়োগ করে আপনি মাসিক একটা স্থির আয়ের ব্যবস্থা করতে পারেন। এই স্কিমটি হল এলআইসির জীবন শান্তি (LIC Jeevan Shanti) স্কিম। এই প্রকল্পের মাধ্যমে গ্রাহকরা মাসিক আয় বৃদ্ধি করতে পারেন। তাহলে আসুন, জেনে নেওয়া যাক এই স্কিম সম্পর্কে –

একবারে বিনিয়োগ করতে হয়

LIC Jeevan Shanti স্কিমে আপনি প্রতি মাসে পেনশন হিসাবে অর্থ পেতে পারেন। এই স্কিমটিতে বিনিয়োগ করে আপনি প্রতি মাসে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণে টাকা পেতে পারেন। এলআইসির জীবন শান্তি প্রকল্প (LIC Jeevan Shanti) একটি লিঙ্কহীন পরিকল্পনা। এতে গ্রাহকদের বার্ষিক প্রিমিয়াম দিতে হয়। গ্রাহক যেমন পেনশন (Pension) নিতে চান সেইরকম বিকল্প এই স্কিমে বেছে নিতে পারেন । গ্রাহকরা ৫, ১০, ১৫ বা ২০ বছর পরে এটির সুবিধা নিতে পারেন। পছন্দ অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময়ের পর পেনশন শুরু হয়। যারা মোটা অঙ্ক জমা দেওয়ার পরপরই পেনশন পেতে চান তারাও এর সুবিধা নিতে পারেন।

LIC-র এই পলিসির নিয়ম অনুযায়ী, যদি কোনও ব্যক্তি ৩০ বা ৩৫ বছরে ৫ লক্ষ টাকা এককভাবে বিনিয়োগ করে, এবং যদি তিনি ২০ বছর পরে পেনশন পেতে চান, তবে বার্ষিক প্রায় ২১.৬ শতাংশ সুদের হারে পেনশন পেতে পারেন। এক্ষেত্রে গ্রাহক প্রতি বছর ১ লক্ষ ৫ হাজার টাকা পাবে। এই টাকাটি যদি কেউ প্রত্যেক মাসে নিতে চান তাহলে প্রতি মাসে সে ৯ হাজার টাকা পাবে। এই টাকা গ্রাহক আজীবন পেয়ে থাকে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.