স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: দুর্বল সংগঠনকে চাঙ্গা করতে এবারে মালদহে মহিলা নেত্রীকে সভাপতির পদে বসাল কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিইউসি বা ইনটাক। বৃহস্পতিবার দুপুরে এই ইস্যুতে মালদহ শহরের রথবাড়ি এলাকার কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠন ইনটাক অফিসে একটি সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সেখানে উপস্থিত ছিলেন সদ্য সভাপতি পদের দায়িত্ব পাওয়া নেত্রী লক্ষ্মী গুহ। তাকে ফুলের স্তবক দিয়ে ও মালা পরিয়ে বরণ করে নেন সংগঠনের জেলার অন্যান্য নেতা-কর্মীরা। একই সঙ্গে এদিন একটি সাংবাদিক বৈঠক করেন জেলার ইনটাকের নতুন সভাপতি লক্ষ্মী গুহ।

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে লক্ষী গুহ বলেন, ‘আমার স্বামী বিশ্বনাথ গুহ দীর্ঘদিন ধরে এই পদ সামলিয়ে এসেছেন। তিনি মারা যাওয়ার পর আইএনটিইউসি রাজ্য সভাপতি মোহাম্মদ কোয়ামরুজ্জামান কুয়ামার সাহেব তাকে মালদা জেলার কংগ্রেসের শ্রমিক গঠন সংগঠন ইনটাকের সভাপতির দায়িত্ব দিয়েছেন’৷

আরও পড়ুন : পরবর্তী মেয়রের জন্য নিজের ওয়ার্ড ছাড়তে রাজি শোভন

গত ১৭ নভেম্বর একটি চিঠি পাঠিয়ে সেই দায়িত্বের কথা জানানো হয়েছে। এরপরই সাংবাদিক বৈঠক করে সকলকে এব্যাপারে অবগত করা হল। উল্লেখ্য, বিগত দিনে মালদহে ইনটাকের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব সামলে এসেছেন প্রয়াত কংগ্রেস নেতা বিশ্বনাথ গুহ৷ ২০০৮ সালে বিশ্বনাথবাবুর মৃত্যুর পর অস্থায়ীভাবে এই দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন কাজী নজরুল ইসলাম৷

দীর্ঘ ১০ বছর পর মালদহের জন্য স্থায়ীভাবে সভাপতির পদে দায়িত্ব দেওয়া হল বিশ্বনাথ গুহের স্ত্রী লক্ষ্মী গুহকে৷ এ নিয়ে সংগঠনের কর্মীদের মধ্যে উচ্ছ্বাস তৈরি হয়।

আরও পড়ুন : শোভনকে রত্না ইডি-তে ফাঁসালে, বাঁচাবে কে …

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত ইনটাক সভাপতি লক্ষ্মী গুহ বলেন, ‘এমনিতেই সংগঠন অনেকটাই দুর্বল হয়ে পড়েছে। মালদহে এই শ্রমিক সংগঠনকে চাঙ্গা করতে এখন থেকে লাগাতার মিটিং-মিছিল ওপর জোর দেওয়া হবে৷ পাশাপাশি বিভিন্ন গ্রামীণ এলাকায় বিড়ি শ্রমিক থেকে বিভিন্ন শ্রমিকদের পরিস্থিতি খোঁজ নিয়ে তাদের সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসবে এই সংগঠন । এছাড়াও বিভিন্ন গ্রামাঞ্চল এবং শহরকেন্দ্রিক এলাকাগুলিতে সংগঠনের সদস্য বাড়াতে ছোট ছোট করে বৈঠক করা হবে৷ আমাদের লক্ষ্য সংগঠনকে চাঙ্গা করা৷ ভবিষ্যতে ভালো করে যাতে এই সংগঠন কাজ করতে পারে সে ব্যাপারেও দৃষ্টি আকর্ষণ করা হবে।’

এদিনের সাংবাদিক বৈঠকে উপস্থিত হয়েছিলেন কংগ্রেস নেতা রবিউল ইসলাম, প্রাক্তন অস্থায়ী সভাপতি ইনটাকের কাজী নজরুল ইসলাম সহ অন্যান্যরা।