পরিচালক কমলেশ্বর মুখার্জী মানেই নতুন চমক। আর যদি তাতে যোগ হয় স্বস্তিকা মুখার্জি এবং অনন্যা চ্যাটার্জির নাম তাহলে তো কোন কথাই নেই। যে তিনজনের নাম বললাম, এনারা সবাই তাদের কাজ দিয়ে প্রমাণ প্রমাণ করেছেন কনটেন্ট ইজ দ্যা কিং।হইচই এর আসন্ন অরিজিনাল সিরিজ ‘মোহমায়া’ সেরকম এক গল্প।

আলো আঁধারি,রহস্য আর তার সাথেই আছে সম্পর্কের সুতো। যা খুব নিপুণভাবে ছোট টিজার এর মধ্যে প্রকাশ করতে সক্ষম হয়েছে পরিচালক। অতি স্বল্প ডায়লগ ও অসাধারণ ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক দিয়ে তৈরী এই সিরিজের টিজার কৌতহল উদ্রেক করে মনে। কোথাও একটা দুই প্রজন্ম যেন এক হয়ে যায়। স্বস্তিকা মুখার্জি এবং অনন্যা চ্যাটার্জীর অভিনয় তো আছেই ,তাছাড়া এই সিরিজের ক্যামেরার কাজও প্রশংসনীয়।অতীতের মায়ার বাঁধন আর মোহ দুই এক হয়ে যাচ্ছে এই গল্পে।

অভিনয়ে দাপুটে অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় (Swastika Mukherjee) ও জাতীয় পুরষ্কার বিজয়ী অনন্যা চ্যাটার্জি । তার সাথে আছে নবাগত বিপুল পাত্র। স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় বলেছেন, “প্রতিটি প্রকল্পের সাথে আমি আমার শ্রোতাদের আলাদা কিছু উপহার দিতে চাই। মোহমায়া এমন একটি গল্প যা আমি অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি।

অন্যদিকে মোহমায়া, অনন্যা চ্যাটার্জির প্রথম ওয়েব সিরিজ। তার কথায় এই ওয়েব সিরিজ নিয়ে তিনি যথেষ্ট উচ্ছ্বসিত এবং এই গল্প মানুষকে আকৃষ্ট করবেই। মোহমায়ার সাথে পরিচালক কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায় আত্মপ্রকাশ করবেন। ছবির গল্প ভাবনা এবং অনন্যা চ্যাটার্জি স্বস্তিকা মুখার্জির মতন অভিনেত্রীদের অভিনয় এর ওপর তাঁর যথেষ্ট ভরসা আছে।

স্বস্তিকা, অনন্যা এবং বিপুলের সামান্য ঝলক থাকলেও এই টিজার দেখে কিছু নেটিজেন ইডিপাস কমপ্লেক্স এর গন্ধ পাচ্ছেন।২o শে মার্চ থেকে মোহমায়া হইচই তে স্ট্রিমিং হবে। স্বস্তিকা মুখার্জি ইনস্ট্রাগ্রামে এই ছবির টিজার প্রকাশ করতেই তাতে ভরে উঠল শুভেচ্ছা বার্তা।

স্ট্যান্ড কমেডিয়ান অভিজিৎ গাঙ্গুলি,অভিনেত্রী শামিতা শেটি তারাও শুভেচ্ছা জানিয়েছে স্বস্তিকার কমেন্ট বক্সে। অনন্যা চ্যাটার্জী অভিনয় স্বস্তিকা মুখার্জির অভিনয় এর বাহিরেও এই ছবির বাড়তি পাওয়া এই ছবির অসাধারন মেকআপ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।