নয়াদিল্লি: বিতর্কিত ইসলাম ধর্ম প্রচারক জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে জন্য রেড কর্নার নোটিশ জারি করতে অস্বীকার করল ইন্টারপোল। জাকির ঘনিষ্ঠ এক ব্যক্তি জানিয়েছেন, জাকির নায়েকের আইনজীবীকে একটি চিঠি দিয়ে রেড কর্নারের তরফে জানানো হয়েছে যে, ভারত যে রেড কর্নার নোটিশ জারি করার দাবি জানিয়েছিল সেটা বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। পর্যাপ্ত প্রমাণ না থাকাতেই এই আবেদন বাতিল করা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। সূত্রের খবর, এরপরই জাকির নায়েক এক ভিডিও বার্তায় জানিয়েছে যে সে শীঘ্রই ভারতে আসতে চায়।

জাকির নায়েকের আইনজীবী পিটার বিনিং কিছুদিন আগে ইন্টারপোলকে দেওয়া এক চিঠিতে জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে জারি হওয়া নোটিশ তুলে নিতে বলেন। এরপরই ইন্টারপোল জানিয়েছে, খতিয়ে দেখার পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই ব্যাপারে তদন্ত করতে গিয়ে যে ডেটা এসেছে ইন্টারপোলের হাতে, তা ইন্টারপোলের আইনবিরুদ্ধ। তাই তখনই সেই ডেটা ডিলিট করে দেওয়া হয়। চলতি বছরের নভেম্বর মাসে সেই ডেটা ডিলিট করে দেওয়া হয়। ভারতীয় সংস্থার তরফে পর্যাপ্ত তথ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলেই অভিযোগ।

এর আগে ভারতের তরফ থেকে ইন্টারপোলের কাছে আবেদন করা হয়, যাতে জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে রেড কর্নার নোটিশ জারি করা হয় ও তাকে ভারতে ফিরিয়ে এনে সন্ত্রাসে জড়িত থাকার অভিযোগে শাস্তির ব্যবস্থা করা হয়। ভারতীয় দণ্ডবিধির 120 (b), 153 (a), 295 (a), 298 ও 505 (2) ধারায় অভিযোগ রয়েছে জাকিরের বিরুদ্ধে।

সূত্রের খবর, বর্তমানে মালয়েশিয়ায় রয়েছে জাকির। বাংলাদেশে গুলশন হামলার পর ২০১৬-র ১ জুলাই ভারত ছেড়ে পালিয়ে যায় সে। ওই বছরের ডিসেম্বরে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়। এরপর তার সংস্থা আইআরএফ-কে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। এনআইএ জানায়, সাম্প্রদায়িক হিংসা ছড়াতে প্রচার চালাচ্ছে জাকির নায়েক। এমনকি যেসব ভারতীয় যুবক দেশ ছেড়ে আইএসে যোগ দিতে যায়, তারাও ধরা পড়ার পর জানিয়েছে যে তারা জাকিরের কথায় প্রভাবিত হয়েছিল।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.