আগরতলা:  বাম ট্রেড ইউনিয়ন ও কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠনগুলির ডাকা ৪৮ ঘণ্টার ভারত বনধে মাঝেই উত্তর পূর্বাঞ্চলে চলেছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদ৷ তারই জেরে রক্তাক্ত পরিস্থিতি ত্রিপুরায়৷ রাজ্যের জিরানিয়াতে উপজাতি ছাত্র সংগঠনের যৌথমঞ্চ এনইএসইউ (নেসু) সমর্থকদের হটাতে গুলি চালায় পুলিশ৷ তাতে অন্তত ৬ জন জখম হয়েছেন৷ এদিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজব ছড়ানো হয়েছে তাদেরই ৫ জনের মৃত্যুর খবর৷

এর পরিপ্রেক্ষিতে আগামী ৪৮ ঘণ্টা ইন্টারনেট সংযোগ স্তব্ধ করা হল ত্রিপুরায়৷ এমনই নির্দেশিকা জারি করা হল রাজ্য সরকারের তরফে৷ ফলে উত্তর পূর্ব ভারতের এই ছোট্ট রাজ্যে এখন ইন্টারনেট আওতার বাইরে৷

মঙ্গলবার বনধ শুরু হওয়ার পরেই উত্তর পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন রাজ্যের পরিস্থিতি অশান্ত হয়ে যায়৷ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে অসমের ডিব্রুগড়ে বনধ সমর্থকরা হিংসাত্মক আচরণ করতে কড়া হয় সরকার৷ শূন্যে গুলি চালানো হয়৷ এর পাশাপাশি দিনভর অশান্ত ছিল পশ্চিম ত্রিপুরার জিরানিয়া৷ সেখানে নেসু সমর্থকরা রাস্তায় নেমে ধর্মঘট পালন করছিলেন৷ বিজেপি কর্মী সমর্থকরা তাদের রুখতে যেতেই সংঘর্ষ ছড়ায়৷ বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ গুলি চালায় শূন্যে৷ এদিকে সংঘর্ষের জেরে কয়েকটি দোকানে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়৷

জানা গিয়েছে, গুলি চালানোর ঘটনায় অন্তত ৬ নেসু সমর্থক জখম হয়েছেন৷ তাদের চিকিৎসা চলছে৷ তড়িঘড়ি ড্যামেজ কন্ট্রোলে হাসপাতালে যান রাজ্যের একাধিক মন্ত্রী৷ তাঁরা কথা বলেন আহত ও তাদের আত্মীয়দের সঙ্গে৷

এদিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে পুলিশের গুলিতে জখম নেসু সমর্থকদের কয়েকজনের মৃত্যুর খবর৷ দ্রুত তা খণ্ডন করে প্রশাসন৷ তারপরেই বন্ধ করে দেওয়া হল ইন্টারনেট পরিষেবা৷ দেশব্যাপী ধর্মঘটে ত্রিপুরাতে সাড়া পড়েছে ভালোই৷ এই রাজ্যে বিরোধী বামেরা পথে নেমে ধর্মঘট পালন করেন৷ রাজধানী আগরতলা সহ অন্যত্র জনজীবন স্তব্ধ ছিল দিনভর৷