প্রতীতি ঘোষ, বারাকপুর: রবিবার গোটা বিশ্বে সাড়ম্বরে পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক নারী দিবস। পিছিয়ে নেই এরাজ্যও। সারা ভারতের বিভিন্ন জায়গায় নারী শক্তিকে সম্মান জানাতে বিশেষ ভাবে পালন করা হচ্ছে বিশেষ এই দিনটি। ব্যতিক্রম নেই উত্তর ২৪ পরগনা জেলার শিল্প শহর বারাকপুরও। এখানেও পুলিশ কমিশনারেটের পক্ষ থেকে এদিন আয়োজন করা হয়, বিশেষ ক্যান্সার সচেতনতা শিবির। ঘরে-বাইরে দিনরাত এককরে যেসমস্ত মহিলা পুলিশ কর্মীরা ঝড়-জলে অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন, তাঁদের এই কাজের প্রতি ভালোবাসাকে কুর্নিশ জানাতেই বারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের পক্ষ থেকে এহেন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এদিন কমিশনারেটের মহিলা থানায় আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে উপস্থিত ছিলেন, বিভিন্ন থানার মহিলা পুলিশ কর্মী, মহিলা সিআরপিএফ কর্মী এবং পুলিশ কর্মীদের পরিবারের মহিলা সদস্যরা। ঘরে বাইরে কাজ সামলাতে সামলাতে হাঁপিয়ে ওঠেন আজকের নারীরা। তবুও থেমে থাকে না তাঁরা। ফলে সংসারে আর পাঁচ জনের খেয়াল রাখতে গিয়ে নিজের স্বাস্থ্যের যত্ন নেওয়া হয়ে ওঠে না তাঁদের। ফলে স্বাস্থ্যের নজর দিতেই বিশেষ দিনে এই ক্যান্সার সচেতনতা শিবিরের আয়োজন। এই শিবিরে উপস্থিত ছিলেন বারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মাও।

পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা বলেন, “প্রত্যেক মহিলার উচিত স্বাস্থ্য সচেতন হওয়া। স্বাস্থ্য সম্পর্কে মহিলারা সচেতন হলে কোনও রোগই তাঁদের শরীরে বাসা বাঁধতে পারবে না। প্রত্যেক বছর মহিলাদের শারীরিক পরীক্ষা করানো উচিত। তাতে কোনও সমস্যা দেখা দিলে শুরুতেই সেই সমস্যা নিরাময় সম্ভব। কিন্তু বাড়ির মহিলারা কখনই সেই অর্থে নিজেদের স্বাস্থ্যের যত্ন নেন না। আমাদের সহ মহিলা পুলিশ কর্মীদের উপর সব সময় অতিরিক্ত চাপ থাকে। এমনকি পুলিশ কর্মীদের বাড়ির মহিলারাও বেশিরভাগ সময় একাই সব দ্বায়িত্ব পালন করেন। তাই ওনাদের স্বাস্থ্য যাতে সব সময় ভালো থাকে, তাই আজকের এই শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে।”

পাশাপাশি এদিন তিনি সাধারন মানুষকে করোনাভাইরাস নিয়ে অযথা আতঙ্কিত না হওয়ার বার্তাও দেন। পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা আরও বলেন “আমাদের রাজ্যে এই ভাইরাসের কোনও প্রভাব নেই , তাই অযথা আতঙ্কিত হবেন না। তবে সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন। করোনাভাইরাস নিয়ে পুলিশ প্রশাসন আর রাজ্য সরকার সব সময় সচেতন রয়েছে।”