বিশেষ প্রতিবেদন, জলপাইগুড়ি: ‘মোরা পাখির ডাকে ঘুমিয়ে উঠি পাখির ডাকে জেগে’…কবির সেই অনুভূতির আজ বড্ড অভাব ব্যস্ত নাগরিক জীবনে। কিন্তু পৃথিবীতে আজও এমন প্রচুর মানুষ আছেন যাঁরা পাখিদের আত্মার আত্মীয় বলে মনে করেন। তাঁদের কথা মাথায় রেখেই ফি বছর ৬ মে ওয়ার্ল্ড ওয়াইল্ড লাইফ ট্রাস্টের উদ্যোগে বিশ্ব জুড়ে পালন করা হয় ‘ইন্টারন্যাশনাল ডন কোরাস’ দিবস।

এই দিন কাকভোরে সারা বিশ্বের পক্ষীপ্রেমীরা রেডিওয় লাইভে শোনেন ভোরের পাখিদের কলতান। এবারের ওই বিশেষ দিনটিতে বিশ্বের মোট একুশটি দেশের আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন পাখিরালয় থেকে টানা পাঁচ ঘন্টা ধরে রকমারি পাখিদের কলতানে মুখরিত হবে বিশ্বের আকাশ বাতাস। ওই বিশেষ দিনে পাখিদের কলকাকলি শোনানোর জন্য দেশের মধ্যে রাজ্যের চাপড়ামারি অভয়ারন্যকে বেছে নিয়েছে অল ইন্ডিয়া রেডিও।

জানা গিয়েছে ওই দিন রেনবো চ্যানেলে ভোর সাড়ে চারটে থেকে সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত শোনা যাবে চামড়ামারি পাখিরালয়ের পাখিদের কিচির মিচির৷ ইউরোপিয়ান ব্রডকাস্টিং ইউনিয়নের অনুরোধে বিশ্ববন্দিত ওই সংস্থাকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে অল ইন্ডিয়া রেডিও। মূল অনুষ্ঠানটি বিশ্বজনীন ভাবে সম্প্রচারিত হবে আয়ারল্যান্ড থেকে। আর ভৌগোলিক অবস্থানের জন্য ভারতে যেহেতু ভোর তাড়াতাড়ি শুরু হয় সেই কারণে অনুষ্ঠান শুরু করা হবে চাপড়ামারিকে দিয়ে।

বিশেষ দিনটিতে চাপড়ামারিতে সঞ্চালক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সুনিত ট্যান্ডন, পক্ষী বিশারদ সুমিত সেন, সুতপা দত্তগুপ্ত ও কৌশিক সেনের মত ব্যাক্তিত্বরা। ওই দিন ভোর সাড়ে চারটে থেকে টানা এক ঘন্টা সারা বিশ্বের মানুষ চাপড়ামারির নিরালায় বেড়ে ওঠা পাখিদের অটুট সাম্রাজ্যের পাখিদের কলতানে মুগ্ধ হওয়ার সুযোগ পাবেন। গোটা অনুষ্ঠানটি আয়ারল্যান্ড থেকে চলবে টানা পাঁচ ঘন্টা ধরে।

অনুষ্ঠানের প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর ও অল ইন্ডিয়া রেডিওর আধিকারিক মনিকা গুলাটি দিল্লি থেকে ফোনে বলেছেন, ‘‘এটি একটি বিশ্বজনীন অধ্যায়। একথা ভেবে আমরা আরও গর্বিত যে আমাদের দেশকে দিয়েই অনুষ্ঠানের সূচনা হবে। সারা বিশ্বের মানুষ আয়ারল্যান্ড স্টুডিওতে সরাসরি ভাবে যোগাযোগ করে সংশ্লিষ্ট দেশের পাখিদের কলতান শুনে তাদের জীবনচক্র সম্পর্কে শত প্রশ্নের উত্তর জানতে পারবেন। এর ফলে মানব সভ্যতার সঙ্গে পাখিদের মেলবন্ধন আরও গভীর থেকে গভীরতর হয়ে উঠবে। শুধু তাই নয় ওই দিন গভীর রাতে চাপড়ামারির রাতের পাখিদের কলতান শোনারও সুযোগ পাবেন সারা বিশ্বের মানুষ।’’

সম্পূর্ণ অনুষ্ঠানটিকে সফল করতে চাপড়ামারিতে হাজির থাকবে অল ইন্ডিয়া রেডিওর একটি ইউনিট। আদতে পাখিদের সঙ্গে মানুষের নিবিড় যোগাযোগ স্থাপনের উদ্দেশ্য নিয়ে বছর কুড়ি আগে ব্রিটেনের একদল পাখি প্রেমী মানুষ ৬ মের বিশেষ দিনটিতে ‘ডন কোরাস ডে’ পালন করতে শুরু করেন। পরবর্তীতে ২০১৫ সালে বিষয়টি আন্তর্জাতিক মান্যতা লাভ করে। ধীরে ধীরে ইউরোপ তো বটেই, সারা পৃথিবীর মানুষের কাছে ওই দিনটি বিপুল জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।

বিশিষ্ট পাখি বিশারদ সুমিত সেন জানিয়েছেন, এই প্রথম এমন একটি বিশেষ এবং অভিনব দিনের সাক্ষী হওয়ার সুযোগ পেয়েছি। নিজেকে অসম্ভব রোমাঞ্চিত মনে হচ্ছে। ভোরের আলো ফুটতেই পাখিরা কেমন আনন্দে মেতে ওঠে, ওদের কিচিরমিচিরের মধ্যে এক অদ্ভুত ছন্দময় সিমফনি আছে। আর চাপড়ামারির নিরিবিলি পরিবেশের জন্যই দেশের মধ্যে ওই সংরক্ষিত বনাঞ্চলকে বেছে নেওয়া হয়েছে। দেশের মধ্যে পাখিদের সংখ্যাতত্বের বিচারে পশ্চিমবঙ্গ প্রথম স্থানে রয়েছে৷ যার সিংহভাগ পাখির আবাস উত্তরবঙ্গের জঙ্গলে।

উত্তরবঙ্গের বন্যপ্রাণ শাখার মুখ্যবনপাল উজ্জ্বল ঘোষ বলেছেন, ‘‘এটা ভেবে আমরা খুবই আনন্দিত যে চাপড়ামারিকে এমন একটি আন্তর্জাতিক মানের অধ্যায়ের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে। অনুষ্ঠানটিকে সর্বাঙ্গীণ সফল করে তুলতে বনদফতরের পক্ষ থেকে সব ধরণের সহায়তা করা হবে।’’