নয়াদিল্লি: গত কয়েকদিন ধরেই ব্যাপক বৃষ্টি কার্যত ভাসছে ভারতের একাংশ। এবার আরও বৃষ্টির পূর্বাভাস দিল মৌসম ভবন। শনিবার রাত ১১ টায় সেই সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে।

আগামী চার ঘণ্টায় হবে ব্যাপক বৃষ্টিপাত। মূলত মুম্বই, থানে ও রায়গড়ে বৃষ্টি হবে বলে জানানো হয়েছে। রবিবারের জন্য আগেই রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছিল।

প্রচুর জলে জমে যাওয়ায় শনিবার আটকে পড়ে মহালক্ষী এক্সপ্রেস। সারাদিনের চেষ্টায় অন্তত ১০০০ জন যাত্রীকে সেই ট্রেন থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। সেইসব যাত্রীদের জন্য বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থাও করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মুম্বই ও তার আশেপাশে প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়েছে।

ইন্ডিয়া মিটিওরোলজিক্যাল ডিপার্টমেন্ট ভারি থেকে ভারি বৃষ্টির সম্ভাবনা জানিয়েছে। রায়গড়, রত্নগিরি, সিন্ধুদুর্গ জেলায় আগেই জারি হয়েছে কমলা সতর্কতা। যথাযথ সাবধানতা নেওয়ার কথাও জানান হয়েছে। কমলা সতর্কতা মানে, সাবধানতা অবলম্বন করা। অন্যদিকে, লাল সতর্কতার মানে, পরিস্থিতির অবনতি দেখে প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নেওয়া। গত মঙ্গলবার রাত থেকেই ফের প্রবল বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে সেখানে।

শনিবার মুম্বইয়ের অদূরে কল্যাণ এলাকায় একটি বাড়িতে আটকে পড়া বাসিন্দাদের উদ্ধার করেছে বায়ুসেনা। বায়ুসেনার Mi-17 হেলিকপ্টারের সাহায্যে ওই ভবনের ৯ সদস্যকে উদ্ধার করে। তাঁদেরে মুম্বই বিমানবন্দরে নামানো হয়েছে। তাঁরা নিরাপদে আছেন।

গত ২৪ ঘন্টায় মুম্বইয়ে ১৫০-১৮০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে৷ বজ্রবিদ্যুৎসহ ১০০ এমএম বৃষ্টির সাক্ষী এরোলি এবং নভি মুম্বই৷ এছাড়া দহানু, আলিবাগ এবং রত্নগিরিতেও হাই অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে৷ শনিবার ১১ বিমানের কর্মসূচী বাতিল করা হয়েছে এবং শুক্রবার ১৭ বিমানের সফর সূচী পরিবর্তন করা হয়েছে৷

প্রবল বৃষ্টির ফলে উদ্ভূত মুম্বইয়ের পরিস্থিতির উপরে কেন্দ্র প্রতিক্ষণ নজর রাখছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। উদ্ধারকাজে বাহিনীর প্রশংসার পাশাপাশি এই বিপদের মুহূর্তে কেন্দ্রে তরফে সমস্ত সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।