স্টাফ রিপোর্টার, হলদিয়া: ৮ মার্চ বিশ্ব নারী দিবস৷ এই উপলক্ষে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে দিনটি উদযাপনের জন্য নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। জেলায় বিশ্ব নারী দিবসে নারী সম্মান জানাতে এগিয়ে এল বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। এদিন সকাল থেকে সারাদিন ধরে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার বিভিন্ন প্রান্তে বিশ্ব নারী দিবস উদযাপন হয়েছে।

বিশ্ব নারী দিবসে উদ্বাস্তু পরিবার ও গ্রামীণ মহিলাদের আর্থিক ক্ষমতায়নে গুরুত্ব দিতে নানা ধরনের কর্মসূচি নিল হলদিয়ার বিভিন্ন শিল্প সংস্থা ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলি। এদিন সকালে বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী সংস্থা হলদিয়া এনার্জি লিমিটেডের উদ্যোগে উদ্বাস্তু পরিবারের স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের নিয়ে দুর্গাচকে নারী দিবসের সচেতনতামূলক পদযাত্রার আয়োজন করা হয়।

ক্ষুদিরাম স্কয়ার থেকে শুরু হয় এই পদযাত্রা। দুর্গাচক টাউন পরিক্রমা করেন স্বনির্ভর গোষ্ঠীর কয়েকশো মহিলা। শিল্প সংস্থার উদ্যোগে এদিন দুর্গাচকে আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। উপস্থিত ছিলেন হলদিয়ার মহকুমাশাসক কুহুক ভূষণ, সুতাহাটা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি আনজুমা বিবি, সংস্থার মহিলা ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের নেত্রী তপতী চৌধুরী প্রমুখ।

এদিন হলদিয়া অভ্যুদয় সংস্থার উদ্যোগে গ্রামীণ মহিলাদের স্বশক্তিকরণের জন্য ‘ভিলেজ মার্কেটিং’ প্রকল্পের সূচনা হয়। সংস্থার কর্মকর্তা প্রণব বেরা বলেন, গ্রামে মহিলাদের স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহারে সচেতনতা বাড়ানো এবং অল্প মূল্যে তা বিক্রির জন্য বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আগামী দিনে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারাই এগুলি তৈরি করে বাড়ি বাড়ি বিক্রি করবেন।

বাজারের স্যানিটারি ন্যাপকিনের অর্ধেক মূল্যে এইগুলি বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিক্রি করবেন স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারাই। এক একটি প্যাকেটের দাম ১৮ টাকা। এদিন ২০ জন স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলার হাতে বিনামূল্যে ২০০টি করে প্যাকেট তুলে দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে হলদিয়ার ‘ফ্রি উইংস’ নামে মহিলাদের দ্বারা পরিচালিত একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার উদ্যোগে এদিন সিটি সেন্টারের উৎসব ভবনে ‘মেনস্ট্রয়াল হাইজিন’ নিয়ে দিনভর আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়৷ সেখানে হাতেনাতে ন্যাপকিন তৈরির প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

সংস্থার নেত্রী সাগরিকা দত্ত বলেন, পুরসভার বস্তি ও গ্রামীণ এলাকায় সামান্য খরচে স্যানিটারি ন্যাপকিন তুলে দিতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সংস্থার মহিলারা বাড়ির কাজে পর এই কাজ করবেন। শিল্প শহরের পাশাপাশি এদিন নিমতৌড়ি তমলুক উন্নয়ন সমিতির পক্ষ থেকে বিশ্ব নারী দিবস উদযাপনে আয়োজন করা হয়। সেই অনুষ্ঠানে আবাসনের পিছিয়ে পড়া তিন মহিলা পারবিন বেগম, প্রণতি রায় ও পুষ্প সাঁতরাকে সম্মানিত করা হয়।

সংস্থার সাধারণ সম্পাদক যোগেশ সামন্ত জানানা, তিন মহিলা প্রতিবন্ধকতাকে দূরে সরিয়ে কষ্টের মধ্যেও পরিবারকে এগিয়ে নিয়ে চলেছে। তাদের এই কর্মকাণ্ডের জন্য সংস্থা তাদের পাশে থেকে বিশ্ব নারী দিবসে তাদের এই লড়াইকে সম্মান জানানো হয়