গুসকরা: বাসস্ট্যান্ড সংস্কারকে কেন্দ্র করে দুই কাউন্সিলরের কাজিয়ায় সরগরম পূর্ব বর্ধমানের গুসকরা পুরসভা। কোনওরকম টেন্ডার ছাড়াই এক কাউন্সিলর ওই কাজ করাচ্ছেন বলে অভিযোগ তুলে কাজ বন্ধ করে দেন কাউন্সিলর মল্লিকা চোঙদার৷ কিন্তু এরপর ওই কাউন্সিলরকে সোশাল মিডিয়ায় কুৎসিৎভাবে আক্রমণ করা হচ্ছে বলে অভিযোগ৷ তাঁকে হুমকিও দেওয়া হচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন৷ এদিকে অপর কাউন্সিলর বলছেন রাত বেরাতে বাড়িতে চড়াও হয়ে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি করছেন অপরজন৷

মঙ্গলবার জেলাশাসকের সঙ্গে দেখা করে তিনি অভিযোগ জানিয়েছেন। গুসকরা বাসস্ট্যান্ডের আধুনিকীকরণের উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য সরকার। সেই কাজেরই অংশ হিসেবে আগামী ৩ সেপ্টেম্বর গুসকরা বাসস্ট্যাণ্ডের দুটি তোরণ ও টিকিট কাউন্টার উদ্বোধনের ইচ্ছা প্রকাশ করেন পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

সম্প্রতি বর্ধমানে একটি অনুষ্ঠানে এসে একথা পরিবহনমন্ত্রী তিনি ঘোষণাও করে যান। এরপরই তড়িঘড়ি কাজ শুরু হয় পূর্ত দফতরের দায়িত্বে থাকা তৃণমূল কাউন্সিলর নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে। তৃণমূলেরই কাউন্সিলর মল্লিকা চোঙদার সেই কাজ বন্ধ করে দেন বলে অভিযোগ।

মল্লিকাদেবীর বক্তব্য, মুখ্যমন্ত্রী পাঁচ লক্ষ টাকার বেশি কাজের জন্য ই-টেন্ডার ডাকার নির্দেশ দিয়েছেন। তাঁর অভিযোগ, কোনও টেন্ডার ছাড়াই কাউন্সিলর নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায় ২৮ লক্ষ টাকার কাজ পরিচিত ঠিকাদারকে পাইয়ে দিয়েছেন। কীভাবে এই কাজ হচ্ছে এবং কাজের শিডিউল জানতে তিনি সোমবার রাতে নিত্যানন্দবাবুর বাড়িতেও যান। কিন্তু তিনি কোনো সদুত্তর পাননি। প্রতিবাদ করায় ফেসবুকে তাঁর বিরুদ্ধে কুৎসা রটানো হচ্ছে বলেও অভিযোগ।

তিনি জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই তিনি মুখ্যমন্ত্রী ও পরিবহনমন্ত্রীর কাছে এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন। অন্যদিকে কাউন্সিলর নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের বক্তব্য, উন্নয়নের সুফল দ্রুত বাসিন্দাদের কাছে পৌঁছে দিতে পুরপ্রধানের সম্মতি নিয়েই কাজ শুরু করা হয়েছিল। কিন্তু মল্লিকা চোংদার তাতে বাধা দিয়েছেন। গুসকরার মানুষ তা মেনে নেবেন না৷

এদিন সন্ধ্যায় নিত্যানন্দবাবু সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, একজন মহিলা কাউন্সিলর রাত ১১টার পর নেশাগ্রস্ত অবস্থায় তাঁর বাড়িতে গিয়ে হুজ্জুতি করেছেন। এই ঘটনা তিনি দলের উপরমহলেও জানিয়েছেন বলে দাবি নিত্যানন্দবাবুর৷ তাঁর হুমকি দলের কাছ থেকে নিরাপত্তা না পেলে তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে দেবেন।

অন্যদিকে, এই ঘটনায় এদিনই নিত্যানন্দবাবুর অনুগামীরা গুসকরা ফাঁড়িতে গিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। নিত্যানন্দবাবুকে অপমান করা হয়েছে, অভিযোগ তুলে ঘটনায় দোষীর শাস্তিও দাবী করেছেন। টেন্ডার নিয়ে অনিয়মের বিষয়ে জেলাশাসক অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, অভিযোগ পেয়েছেন। গোটা বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। নিয়ম মেনে কাজ না হলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করা হবে।