প্রতীকী ছবি

নিউজ ডেস্ক: ফের জাতীয় পশুর মৃত্যুর খবর অসমের জাতীয় উদ্যানে। সম্ভবত ১২ বছর বয়সী একটি পুরুষ রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের মৃত্যু হয়েছে কাজিরাঙ্গা ন্যাশনাল পার্কে। বৃহস্পতিবার এমনটা জানিয়েছেন পার্কের কর্মকর্তারা।

অসমের কাজিরাঙ্গা ন্যাশনাল পার্ক, অরং, মানস এবং নামেরি জাতীয় উদ্যানকে বাঘেদের নিরাপদ আস্তানা হিসেবে গন্য করা হয়। সেই কাজিরাঙ্গা ন্যাশনাল পার্কেই ফের ঘটল রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের মৃত্যু। ময়না তদন্তের রিপোর্ট বলছে, নিজেদের মধ্যে মারামারি করেই মৃত্যু হয়েছে বাঘটির। যৌন অধিকার কায়েম করতে গিয়ে পরস্পর সংঘর্ষে মৃত্যু হচ্ছে বাঘেদের এমনটা মনে করছেন পার্কের কর্মকর্তারা।

বুধবার বাঘটির পচা গলা দেহ উদ্ধার হয়েছে পার্কের কহরা রেঞ্জের বরুন্তিকা এলাকায়। দু’সপ্তাহের মধ্যেই বাঘটির মৃত্যু হয়েছে বলে অনুমান করা হচ্ছে। পার্কের দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক পিশিব কুমার জানিয়েছেন, “মৃত বাঘটির বয়স ১২ বছরের মধ্যে। অন্যান্য বাঘেদের সঙ্গে সংঘর্ষের জেরেই প্রাণ হারিয়েছে বাঘটি”।

এবছর এই নিয়ে দুবার ওই পার্কে ঘটল বাঘের মৃত্যুর ঘটনা। এই বছরই ফেব্রুয়ারিতে পার্কের পাশেই একটি বাঘের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছিল। বার্ধক্য জনিত কারণেই মৃত্যু হয়েছিল তার।

২০১৭ সালের গণনার হিসেবে কাজিরাঙ্গা পার্কে পৃথিবীর সবথেকে বেশি এক শিংওয়ালা গণ্ডার রয়েছে। সংখ্যায় প্রায় ২৪১৩। ১০৪ টি বাঘও ছিল। ২০০৮ সালের নভেম্বর থেকে ২০০৯ সালের ফেব্রুয়ারির মধ্যে ওই পার্কে ১০ টি বাঘের মৃত্যু হয়েছে। বার্ধক্য জনিত কারণে, পরস্পর সংঘর্ষে, মহিষদের সঙ্গে সংঘর্ষে এবং গ্রামবাসীরা বিষ দিয়ে মেরে ফেলেছে তাদের, এমনটাও দেখা গিয়েছে। গত বছর ডিসেম্বরে বনদপ্তরের কর্মীরা ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে এই সংক্রান্ত অভিযোগে।