ভোপাল: বিজেপির অন্দরের বিতর্ক চলছেই। মধ্যপ্রদেশে চাষিরা বন্যা দূর্গত। কিন্তু বিজেপির ভিতরেই বিতর্কের বন্যা প্রায় সব ভাসিয়ে নিয়ে যায়। রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান বনাম মধ্যপ্রদেশ বিজেপি সভাপতি রাকেশ সিং এর দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে।

নিমুচ এবং মন্দ্যাসুর এলাকায় বন্যাদূর্গত চাষীদের গিয়ে দেখে এসেছেন শিবরাজ। ক্ষমতাসীন কংগ্রেস সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, সত্বর ত্রাণ বন্টন চালু না করলে বিশাল আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন। কিন্তু তখনও তিনিব্যান্টেন না, তাঁর পার্টির রাজ্য সভাপতি বিধানসভাওয়ারি আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন আগামী ২০ সেপ্টেম্বর থেকে।

বিরোধ মেটাতে মাঠে নামতে হয়েছিল রাজ্য বিজেপি মিডিয়া কো-অর্ডিনেটর লোকেন্দ্র পরাশরকে। তিনি জানান, শিবরাজ সিং চৌহান তিন জায়গায় আন্দোলনে নামবেন। রাজ্য সভাপতি দলের বিশিষ্ট নেতৃত্বের সঙ্গে কথা বলে রাজ্য জুড়ে আন্দোলনে নামবেন। রাজ্য সভাপতি অবশ্য পরে বলেছেন, সারা রাজ্য জুড়েই কংগ্রেস সরকারের অপদার্থতার বিরুদ্ধে আন্দোলন হবে।

মধ্যপ্রদেশের সাম্প্রতিক রাজনীতিতে বার বার একা হয়ে পড়েছেন শিবরাজ সিং চৌহান। মুখ্যমন্ত্রীত্ব খোয়ানোর পর তিনি সারা রাজ্য জুড়ে ‘আভার যাত্রা’ বা কৃতজ্ঞতা যাত্রা করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু, দল তাঁকে সে অনুমতি দেয়নি।

তবে, মধ্যপ্রদেশের বাইরে কাজ করতে না চাইলেও পার্টি শিবরাজকে যোগ্য সম্মান দিয়ে সর্বভারতীয় সহ সভাপতি মনোনীত করেছ। সদস্যতা অভিযানের মত গুরুত্বপূর্ণ কাজের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সারা দেশে রেকর্ড সদস্য বানিয়ে শিবরাজ নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করেছেন।

যদিও কংগ্রেস মধ্যপ্রদেশে বিজেপির অন্দরের ঝামেলাকেই ইস্যু বানিয়েছে। শিবরাজ চৌহান, বিধানসভায় বিরোধী দলনেতা গোপাল ভর্গভ এবং বিজেপি বিধায়ক নরোত্তম মিশ্রর মতবিরোধকে সামনে আনতে চাইছে কংগ্রেস।