জাকার্তাঃ  কয়েকদিন ধরে টানা বৃষ্টি। যার জেরে একেবারে বিপর্যস্ত গোটা ইন্দোনেশিয়া। ইতিমধ্যে সে দেশের একাধিক জায়গায় বন্যা দেখা দিয়েছে। ব্যাপক ভূমি ধস নেমেছে। আর যার ক্রমশ বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। ভূমি ধসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫৩। ভয়ঙ্কর এই প্রাকৃতিক দুর্যোগে রাজধানী জাকার্তা ও এর আশপাশের এলাকার প্রায় এক লাখ ৭৫ হাজার মানুষ এখনও ঘরছাড়া। এমনটাই প্রশাসনিক স্তরে জানা গিয়েছে। অন্যদিকে, বৃষ্টি এবং বন্যার কারণে অনেক এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগ ও রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে বলে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

চলতি বছরের শুরু থেকে এক নাগাড়ে এই বৃষ্টিকে ‘ইতিহাসের অন্যতম ভয়াবহ বর্ষণ’ হিসেবে অভিহিত করেছে ইন্দোনেশিয়ার আবহাওয়া, জলবায়ু ও ভূ-প্রাকৃতিক বিষয়ক সংস্থা বিএমকেজি।

জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে আবহাওয়ার এই রুদ্রমূর্তি দেখা যাচ্ছে বলেও ধারণা তাদের। ভারী এই বৃষ্টিপাত মধ্য ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলতে পারে এবং চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহের দিকে ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে জানিয়ে সতর্কও করেছে সংস্থাটি। এদিকে দুর্যোগ প্রশমন সংস্থার শনিবারের হিসাবে জাকার্তা ও এর আশপাশের এলাকাগুলোর এক লাখ ৭৩ হাজার ৬৪ বাসিন্দাকে এখনও ঘরের বাইরে থাকতে হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

টেলিভিশন ফুটেজে জাকার্তার একাংশে বন্যার জল দেখানো হয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ার রাজধানীতে ৩ কোটিরও বেশি মানুষের বাস। ২০০৭ সালের ভয়াবহ বন্যায়ও জাকার্তায় নিহতের সংখ্যা অর্ধশত ছাড়িয়ে গিয়েছিল। এবারও কি সেই পথেই এগোচ্ছে সে দেশ, তীব্র আতঙ্ক।